মদের আসরে এক যুবককে পাথর দিয়ে থেঁতলে খুন করার অভিযোগ উঠল। বেহালার চণ্ডীতলা এলাকার ওই ঘটনা নিয়ে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার মাঝরাতে কয়েক জন যুবক রক্তাক্ত এক জনকে নিয়ে বেহালার বিদ্যাসাগর হাসপাতালে নিয়ে আসে। তাঁরা জানান, ওই যুবক আহত হয়ে রাস্তার ধারে পড়েছিলেন। এর পর হাসপাতালে তাঁকে ফেলে রেখেই চলে যায় ওই যুবকেরা। চিকিৎসকেরা পরীক্ষা করে দেখেন, ওই যুবক ইতিমধ্যেই মারা গিয়েছেন। তাঁর মাথায় গভীর ক্ষত।

এর পর হাসপাতাল থেকে বেহালা থানায় খবর যায়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, বুধবার রাতে গাড়ির মধ্যে বন্ধুদের সঙ্গে মদ্যপান করছিলেন পেশায় গাড়িচালক শুভ দাস। এর পর সঙ্গীদের সঙ্গে তাঁর বচসা বাঁধে। তার জেরেই শুভকে পাথর দিয়ে মাথায় আঘাত করা হয়। ওই অবস্থাতেই শুভকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। তার পর পালিয়েও যায়।

 

শুভর জামাইবাবু রাজু দাস জানান, গত কাল রাতে তিনি যখন বাড়ি ফিরছিলেন, তখন দেখেন, শুভ একটি ম্যাটাডরে বসে বন্ধুদের সঙ্গে মদ খাচ্ছেন। শুক্রবার রাজু বলেন, ‘‘সেই সময় ওর সঙ্গে কোনও কথা হয়নি। তার পর আর কিছু জানি না। সকালে পুলিশ এসে বিষয়টি জানায়। ওই আসরে যারা ছিল, এই খুনের সঙ্গে তারাই জড়িত।’’

আরও পড়ুন: ‘ছেলেকে মেরে আত্মঘাতী’ শিক্ষক বাবা

আরও পড়ুন: প্ল্যাটফর্মের পরিবর্তে মাঝের লাইনে ট্রেন, যাত্রী দুর্ভোগ, দাশনগরে বিঘ্ন ট্রেন চলাচল

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, দীর্ঘ দিন ধরেই শুভ তাঁর বন্ধুদের নিয়ে গাড়িতে বসে মদ খেতেন। এ নিয়ে আগেও বিভিন্ন সময় ঝামেলা হয়েছে। পুলিশের কাছে অভিযোগও জমা পড়ে। বেহালা থানার এক তদন্তকারী আধিকারিক বলেন, ‘‘গত কাল কী নিয়ে ঝামেলা হয়েছিল, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই চার জনকে আটক করা হয়েছে। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।’’

(কলকাতার ঘটনা এবং দুর্ঘটনা, কলকাতার ক্রাইম, কলকাতার প্রেম - শহরের সব ধরনের সেরা খবর পেতে চোখ রাখুন আমাদেরকলকাতাবিভাগে।)