দুই বাসের রেষারেষিতে মৃত্যু হল এক ঠিকা শ্রমিকের। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার মহেশতলা থানার নয়া বস্তির নতুন নগরে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ঠিকা শ্রমিকের নাম কানাই বেসরা (৫৫)। তাঁর বাড়ি পুরুলিয়ায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, সম্প্রতি পুরুলিয়া থেকে কানাই তাঁর স্ত্রীকে নিয়ে মহেশতলা এলাকায় রাস্তার কাজের জন্য এসেছিলেন। এ দিন তাঁরা যখন ওই এলাকার রাস্তায় কাজ করছিলেন সেই সময়ে তারাতলার দিক থেকে বজবজের দিকে যাচ্ছিল এসডি-৩০ এবং ৭৭/এ রুটের দু’টি বাস। স্থানীয়দের অভিযোগ, বাস দু’টি নিজেদের মধ্যে রেষারেষি করছিল। এসডি-৩০ রুটের বাসটি অন্য বাসকে ওভারটেক করতে গিয়ে কানাইকে চাপা দিয়ে যায় বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ওই ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ জনতা এলাকায় প্রায় কুড়ি মিনিট রাস্তা অবরোধ করেন। পরে পুলিশ গিয়ে লাঠি চার্জ করে অবরোধ তুলে দেয়। যদিও পুলিশ লাঠি চার্জ করার কথা অস্বীকার করেছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, জিঞ্জিরা বাজার থেকে বাটা পর্যন্ত উড়ালপুলের কাজের জন্য কয়েক বছর ধরে খারাপ হয়েছিল নীচের রাস্তাটি। মাস তিনেক আগে উড়ালপুলটি উদ্বোধন হওয়ার পরে প্রশাসন জানিয়েছিল, এক মাসের মধ্যে ঠিক করে দেওয়া হবে নীচের রাস্তা। সেই রাস্তা আজও তৈরি না হওয়ায় দুর্ঘটনা থামছে না বলে অভিযোগ করছেন স্থানীয়েরা। এ দিন এলাকাবাসী মৃত ওই শ্রমিকের পরিবারের জন্য আর্থিক ক্ষতিপূরণের দাবি করেন।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

মহেশতলা পুরসভার চেয়ারম্যান দুলালচন্দ্র দাস বলেন, ‘‘সাধারণ মানুষের কাছে আর কিছু দিন সময় চাইছি। আশা করছি দিন ১৫-র মধ্যেই ওই রাস্তার কাজ শেষ হয়ে যাবে।’’