দিদিমা ক্যাবের ভাড়া মেটাচ্ছিলেন পিছনের সিটে বসে। সঙ্গে থাকা ছ’বছরের বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুটি (কথাও বলতে পারে না) 

সামনের দিকে এসে গাড়ির বাতানুকূল যন্ত্রে হাত দিয়েছিল। তাতে নিষেধ করেন চালক। অভিযোগ, কথা না শোনায় এর পরেই চালক তার ডান হাত মুচড়ে দেন। দিদিমা প্রতিবাদ করলে তাঁর সঙ্গেও দুর্ব্যবহার করেন ওই চালক। মঙ্গলবার দুপুরে ওই ঘটনাটি ঘটেছে গাড়িয়াহাট থানা এলাকার ডোভার লেনে একটি স্কুলের কাছে। এই চালকের বিরুদ্ধে বুধবার গড়িয়াহাট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন শিশুটির মা। পুলিশ তার ভিত্তিতে তদন্তে নেমে রাতে বরাহনগর থেকে চন্দ্রেশ্বর রাই নামে ওই ক্যাবচালককে গ্রেফতার করেছে। 

পুলিশ জানায়, অভিযোগকারিণীর নাম পিয়ালী গুপ্ত। দমদমের মতিঝিল এলাকায় বাড়ি। তাঁর বছর ছয়েকের ছেলে গড়িয়াহাটের একটি স্কুলে পড়ে। গত এক বছর ধরে দিদিমা 

প্রতিমা গুপ্তের সঙ্গে দমদম থেকে ওই স্কুলে যাতায়াত করে শিশুটি। পিয়ালীদেবীর অভিযোগ, মঙ্গলবার স্কুল যাওয়ার জন্য একটি অ্যাপ-ক্যাব বুক করা হয়েছিল। গাড়িটি নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছনোর পরেই শিশুটি সামনের সিটে চলে গিয়ে বাতানুকূল যন্ত্রে হাত দেয়। তখন চালক বাধা দেন। অভিযোগ, তাকে কানে মারারও হুমকি দেন। পুলিশ জানায়, শিশুটি বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন হওয়ায় চালকের কথা কিছুই বুঝতে না পেরে ফের তাতে হাত দেয়। এর পরেই চালক শিশুটির ডান হাত মুচড়ে দেন বলে অভিযোগ। পুলিশ জেনেছে, দিদিমা এর প্রতিবাদ করায় তাঁকে চালক পাল্টা বলেন, ‘‘ওই রকম বাচ্চা নিয়ে বাইরে বেরোবেন না। ঘরেই থাকবেন।’’

পিয়ালীদেবী বৃহস্পতিবার জানান, তিনি পুলিশের কাছে যাওয়ার আগেই ওই অ্যাপ-ক্যাব সংস্থায় অভিযোগ জানান। এর ভিত্তিতে ওই সংস্থা পুরো টাকা ফেরত দেয় এবং ওই চালকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে বলেও জানানো হয়। পুলিশও অভিযুক্ত চালকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে বলে আশা ওই মায়ের।