পাতিপুকুরে রাজ্য সরকারের অধিগ্রহণ করা একটি জলাশয় বুজিয়ে নির্মাণ হচ্ছে অভিযোগ পেয়ে ব্যারাকপুরের মহকুমাশাসক জমি ভরাট বন্ধ করতে চার বছর আগে নির্দেশ দিয়েছিলেন। মহকুমাশাসকের নির্দেশ অগ্রাহ্য করে নির্মাণ চালু থাকায় ২০১৭ সালে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন পাতিপুকুর এলাকার এক রিকশাচালক। শুক্রবার ওই জনস্বার্থ মামলার শুনানিতে প্রধান বিচারপতি থোট্টাথিল ভাস্করন নায়ার রাধাকৃষ্ণন এবং বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ রাজ্যকে নির্দেশ দিয়েছে, মহকুমাশাসকের নির্দেশ কেন অমান্য করা হয়েছে, তা দু’সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা পেশ করে জানাতে। চিত্তরঞ্জন সরকার নামে ওই রিকশাচালকের বাড়ি রাজারহাটে। তাঁর আইনজীবী রবিশঙ্কর চট্টোপাধ্যায় জানান, ১৯৯৬ সালে ৩৩ কাঠার ওই জলাশয় রাজ্য সরকার অধিগ্রহণ করেছিল। সেই খাস জমি বুজিয়ে বেসরকারি উদ্যোগে নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ায় স্থানীয় লোকজন তার প্রতিবাদ করেন। পুলিশেও অভিযোগ জানান। কিন্তু পুলিশ বা প্রশাসন নির্মাণ বন্ধ করতে উদ্যোগী হয়নি। মামলার আবেদনে বলা হয়, ব্যারাকপুরের মহকুমাশাসকের নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নির্মাণ চলায় বুঝতে হবে রাজ্যে আইনের শাসন নেই।