গর্ভপাতের অনুমতি চেয়ে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তীর দ্বারস্থ হয়েছিলেন রহিম ওস্তাগর রোডের বাসিন্দা এক মহিলা। তাঁকে আজ, শনিবার এসএসকেএম হাসপাতালের (আইপিজিএমইআর) ডিরেক্টরের কাছে যেতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। মহিলার গর্ভপাত করানোর প্রয়োজন আছে কি না, ডিরেক্টরের অধীন মেডিক্যাল বোর্ড তা বিবেচনা করবে। বোর্ডের সিদ্ধান্ত আগামী সোমবার হাইকোর্টকে জানাবে রাজ্য।

আদালতের কাছে ওই মহিলার আবেদন ছিল, তাঁর গর্ভস্থ ভ্রূণ পরীক্ষা করে চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, তার মস্তিষ্কে জল জমছে। জন্মের পরে সন্তানের মৃত্যু হতে পারে। অথবা তার প্রতিবন্ধকতা থাকবে। এই পরিস্থিতিতে তাঁকে গর্ভপাত করানোর অনুমতি দিক আদালত।

বৃহস্পতিবার মামলার শুনানিতে রাজ্যের অতিরিক্ত অ্যাডভোকেট জেনারেল অভ্রতোষ মজুমদারকে বিচারপতি চক্রবর্তী নির্দেশ দিয়েছিলেন, মহিলার আবেদন সম্পর্কে এসএসকেএম কর্তৃপক্ষ ও রাজ্যের বক্তব্য শুক্রবার আদালতকে জানাতে। ওই মহিলা ও তাঁর স্বামীকেও এ দিন আদালতে হাজির থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। 

অভ্রতোষ আদালতে জানান, কেন্দ্র ২০১৭-র অগস্টে সব রাজ্যে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বলেছিল, এই ধরনের জটিলতা থাকা অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের গর্ভপাতের গুরুত্ব বোঝার জন্য সংশ্লিষ্ট রাজ্যের জেলাগুলিতে মেডিক্যাল বোর্ড গড়তে। এসএসকেএম-সহ এ রাজ্যের সব জেলায় সেই বোর্ড গড়া হয়েছে। তাতে আছেন চিকিৎসাশাস্ত্রের বিভিন্ন বিভাগের (স্ত্রী-রোগ, শিশুরোগ, রেডিয়োলজি, পালমোনোলজি, প্যাথলজি) বিশেষজ্ঞেরা। অভ্রতোষের আবেদন ছিল, মহিলাকে ওই বোর্ডে হাজির হতে নির্দেশ দিক আদালত।

তা শুনে মহিলার আইনজীবী অমিতাভ ঘোষকে বিচারপতি নির্দেশ দেন, তাঁর মক্কেলকে আজ শনিবার সকাল ১১টা নাগাদ এসএসকেএমের ডিরেক্টরের কাছে যেতে।