আলিপুর আদালতের মুখ্য বিচারবিভাগীয় বিচারক পদটি মাসখানেকের উপরে ফাঁকা। বিভিন্ন দিন বিভিন্ন বিচারক ভারপ্রাপ্ত হিসেবে ওই দায়িত্ব সামলাচ্ছেন। কিন্তু স্থায়ী বিচারক না থাকায় দৈনিক গড়ে ১০টি মামলার বিচার প্রক্রিয়া বন্ধ থাকছে বলে আদালত সূত্রের খবর। বহু গুরুত্বপূর্ণ মামলায় পরবর্তী শুনানির দিন হিসেবে একের পর এক তারিখ দেওয়া হচ্ছে।

আলিপুর আদালতের মুখ্য বিচারবিভাগীয় বিচারক দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা বিচারকের প্রতিনিধিও বটে। জেলার বিভিন্ন আদালতের প্রশাসনিক কাজের দায়িত্ব তাঁর উপরে। ওই আদালতের অধীনে কলকাতার ২২টি থানা রয়েছে। দিনে গড়ে প্রায় ৩০টি মামলার শুনানি হয়। কিন্তু আইনজীবীদের বক্তব্য, বিভিন্ন দিনে বিভিন্ন বিচারক ভারপ্রাপ্ত হয়ে কাজ করায় তাঁরা মামলার গতিপ্রকৃতি সম্পর্কে অবগত থাকছেন না।

কলকাতা হাইকোর্টের মাধ্যমে আলিপুর আদালতের মুখ্য বিচারবিভাগীয় বিচারক নিয়োগ করা হয়। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা বিচারকের দফতর সূত্রে খবর, সরকারি নির্দেশিকা জারি হয়েছে। কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই স্থায়ী বিচারক নিয়োগ করা হবে।