কাটা আঙুল জোড়া লাগবে, ভাবেননি পাথরপ্রতিমার স্কুলের শিক্ষক। সেটাই করে দেখাল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগ। মঙ্গলবার চেক-আপ করাতে এসে ওই শিক্ষক বললেন, ‘‘সরকারি হাসপাতালে এত ভাল পরিষেবা পাব ভাবিনি।’’

গত ৬ জুন মার্বেল কাটার যন্ত্র দিয়ে কাজ করছিলেন অনুপ প্রামাণিক। অসাবধানতাবশত সেই যন্ত্র তাঁর বাঁ হাতের বুড়ো আঙুলের উপর দিয়ে চলে যায়। ক্ষতস্থান চেপে প্রথমে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও পরে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে যান তিনি। এ ক্ষেত্রে গজ দিয়ে মুড়ে কাটা আঙুল নিয়ে যান অনুপবাবুর পরিজনেরা। সিএমসি-র প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক শান্তনু সুবা জানান, সংরক্ষণের জন্য কাটা আঙুলটি গ্লাভসে ভরে ডিপ ফ্রিজারে ৪-৮ ডিগ্রি তাপমাত্রায় রাখা হয়। ৭ তারিখ শুরু হয় অস্ত্রোপচার। আঙুল জুড়তে হাড়ের অংশ একটু কেটে খাটো করা হয়। জটিলতা এড়াতে কাটা আঙুলের নখ তুলে ফেলা হয়। এ দিন শান্তনুবাবু বলেন, ‘‘আঙুলের সংবেদনশীলতা পুরোপুরি আসেনি। তবে আসছে। নিয়মিত ফিজিয়োথেরাপি প্রয়োজন।’’