মাত্র ১৪০০ টাকার জন্যে খুন! বানতলা চর্মনগরীর খুনের ঘটনার তদন্তে এমনই তথ্য উঠে এসেছে।

সোমবার চর্মনগরীর একটি কারখানায় সিরাজ মোল্লা নামে এক ঠিকাদারের ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার হয়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, সিরাজের কাছে ১৪০০ টাকা চেয়েছিলেন ওই কারখানায় কর্মরত তাঁরই এক আত্মীয়। কিন্তু তা দিতে রাজি হননি সিরাজ। সেই আক্রোশেই সিরাজকে খুন করা হয়েছে বলে মনে করছে লেদার কমপ্লেক্স থানা। ঘটনার পর থেকে আততায়ী পলাতক।

পুলিশ সূত্রে খবর, সিরাজ তাঁর ওই আত্মীয়কে ওই কারখানায় কাজে ঢুকিয়ে ছিলেন। ইদের জন্য কারখানা কর্তৃপক্ষের তরফে ঠিকাদারকে বলা হয়েছিল, শ্রমিকদের টাকা ভাগ করে দেওয়ার জন্য। সিরাজের কাছে তাঁর আত্মীয় ১৪০০ টাকা দাবি করে। পুলিশ অন্যান্য শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানার চেষ্টা করছে, কেন সিরাজ সেই টাকা দিতে চাননি? অথবা সিরাজের কাছে তার আত্মীয় বেশি টাকা দাবি করেছিলেন কি না? খুনের নেপথ্যে অন্য কোনও কারণ রয়েছে কি না, তা-ও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: দেড় দিন পর টালিগঞ্জ কাণ্ডে ধৃত মূল চক্রী পুতুল, এখনও অধরা ভাইপো আকাশ

আরও পড়ুন: হামলার নেতৃত্বে ভাইপো, নেপথ্যে ডন পিসি, প্রভাবশালী নেতার প্রশ্রয়েই টালিগঞ্জ কাণ্ড?

বাসন্তীর নতুনহাট এলাকার বাসিন্দা সিরাজ ওই চামড়ার কারখানার ঠিকাদার ছিলেন। কাজের সুবিধার জন্য তিনি কারখানাতেই থাকতেন। রবিবার রাতে সেখানে তাঁর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন অন্য কর্মীরা। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের মুখে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাতের চিহ্ন ছিল।