• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সংক্রমণে এ বার মৃত সিভিক ভলান্টিয়ার

dead body
প্রতীকী ছবি।

এ বার করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল কলকাতা পুলিশের ট্র্যাফিক গার্ডের এক সিভিক ভলান্টিয়ারের। পুলিশ সূত্রের খবর, রবিবার সকালে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ইস্ট ট্র্যাফিক গার্ডের ওই সিভিক ভলান্টিয়ারের মৃত্যু হয়। এর আগে কলকাতা পুলিশের সাউথ ডিভিশনের এক কনস্টেবলের এবং শিয়ালদহ ট্র্যাফিক গার্ডের এক কনস্টেবলের মৃত্যু হয়েছে করোনায়।

পুলিশ সূত্রের খবর, বেলেঘাটার বাসিন্দা বছর পঁয়তাল্লিশের ওই সিভিক ভলান্টিয়ার এই মাসের শুরুতে অসুস্থ হয়ে পড়েন। কোভিডের উপসর্গ থাকায় তাঁর লালারসের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। রিপোর্ট পজ়িটিভ এলে তাঁকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু শনিবারের পর থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। রবিবার সকালেই তাঁর মৃত্যুর খবর আসে।

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই সিভিক ভলান্টিয়ার মূলত পার্ক সার্কাস সাত মাথার মোড়ে ডিউটি করতেন। তিনি পরিবারের বড় ছেলে। পাঁচ-ছ বছর ধরে তিনি ইস্ট ট্র্যাফিক গার্ডে কর্মরত ছিলেন। পুলিশ সূত্রের খবর, এ দিন ওই সিভিক ভলান্টিয়ারের করোনায় মৃত্যু হওয়ায় পরে লালবাজার থেকে ফের থানা ও গার্ডগুলিকে নির্দেশ দিয়ে বলা হয়েছে অন্য পুলিশকর্মীদের পাশাপাশি সিভিক ভলান্টিয়ারদেরও কাজের সময়ে সব রকমের সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

এ দিকে কলকাতা পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫৭০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। অনেকে সুস্থ হয়ে বাড়িও ফিরেছেন। কিন্তু সুস্থ হওয়ার সংখ্যা বেশি হলেও করোনা আতঙ্ক পুলিশের পিছু ছাড়ছে না। এ দিন ইস্ট ট্র্যাফিক গার্ডের এই সিভিক ভলান্টিয়ারের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তে ফের আতঙ্ক দেখা দিয়েছে পুলিশকর্মীদের মধ্যে। যদিও এ দিন পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা ঝুঁকি না নিয়ে কাজ করতে এবং আতঙ্কিত না হওয়ার বার্তা দিয়েছেন পুলিশকর্মীদের। 

করোনা আবহের আনলক পর্যায়ে ফের কলকাতায় সংক্রমণ বেড়েছে। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি পুলিশকর্মীদের মধ্যেও করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। কোনও দিন ১৪-১৫ জন, কোনও দিন আবার ২০ জন আক্রান্ত হচ্ছেন। শনিবারই কসবা থানার একসঙ্গে সাত জন পুলিশকর্মীর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজ়িটিভ আসে। রবিবার রাত পর্যন্ত ২৫ জনের রিপোর্ট পজ়িটিভ বলে লালবাজার সূত্রের খবর।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন