• ফিরোজ ইসলাম
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ত্রুটি শুধরে নিয়ে চূড়ান্ত মহড়া দৌড়ে ইস্ট-ওয়েস্ট

metro
ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর মহড়া। ফাইল চিত্র

Advertisement

যাবতীয় খামতি মিটিয়ে পরীক্ষায় পাশ করার শেষ সুযোগ ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর সামনে।

দশ দিনের মহড়া দৌড় ভালয় ভালয় না মিটলে ফের একই ক্লাসে থেকে যেতে হবে মেট্রোকে।

তখন, নতুন করে কার্যত ‘টেস্ট’ পরীক্ষা দিয়েই চূড়ান্ত পরীক্ষায় বসার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে মেট্রোকে। এ বারের প্রস্তুতিতে তাই আর কোনও ফাঁক রাখতে চাইছেন না কর্তৃপক্ষ।

সোমবার থেকে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় শুরু হয়েছে দশ দিনের বিশেষ মহড়া দৌড়। আগামী ২০ নভেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন দুপুর ১২ টা থেকে বিকেল ৪ টে পর্যন্ত ট্রেন চলাচল এবং যাত্রী পরিষেবা সংক্রান্ত যাবতীয় ব্যবস্থাপনা চালু রেখেই ওই মহড়া দৌড় সম্পূর্ণ করার নির্দেশ দিয়েছেন মেট্রো রেলের জেনারেল ম্যানেজার।

মহড়ায় ট্র্যাফিক কন্ট্রোলারদের তত্ত্বাবধানে বাণিজ্যিক ভাবে মেট্রো চলাচলের যাবতীয় ব্যবস্থা চালু রাখতে বলা হয়েছে। প্রত্যেক স্টেশনে বুকিং কাউন্টার খোলা ছাড়াও সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কের কন্ট্রোলরুম থেকে ট্রেন নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাও চালু রাখতে বলা হয়েছে। প্রত্যেক স্টেশনে ট্রেন এসে থামলে প্ল্যাটফর্মের স্ক্রিনডোর ঠিক মতো খোলা এবং বন্ধ হওয়ার কাজ হচ্ছে কি না তা-ও দেখতে বলা হয়েছে। প্রসঙ্গত, এর আগে চালকদের প্রস্তুতির অভাবে প্ল্যাটফর্মে ঠিক জায়গায় ট্রেন থামানো নিয়ে সমস্যা দেখা দিয়েছিল। বহু ক্ষেত্রে চালকেরা ওই কাজ নিপুণ ভাবে করতে না পারায় প্ল্যাটফর্মের স্ক্রিনডোর খোলার ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দিচ্ছিল। এ বার অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে ওই কাজ করতে বলা হয়েছে।

আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে যাবতীয় প্রস্তুতি সেরে বাণিজ্যিক ভাবে ট্রেন চলাচলের জন্য ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো খুলে দেওয়ার কাজ করতে হবে। তার কারণ ওই দিনই কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির দেওয়া ছাড়পত্রের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। যদি ওই সময়ের মধ্যে উদ্বোধন পর্ব না মেটানো যায়, সে ক্ষেত্রে নতুন করে যাবতীয় পরিকাঠামোর জন্য কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির ছাড়পত্র নিতে হবে। যা জটিল এবং সময় সাপেক্ষ।

সোমবার থেকে শুরু হওয়া মহড়া দৌড়ে আপৎকালীন পরিস্থিতিতে মাঝপথে ট্রেন থামিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে আনার মতো পরিস্থিতি তৈরি হলে কী করণীয়, তারও মহড়া দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মেট্রো কর্মীদের।
বিশেষ পরিস্থিতিতে যাত্রা সংক্ষেপ করে মেট্রো চালানোর প্রস্তুতিও সেরে রাখতে বলা হয়েছে।

উত্তর-দক্ষিণ মেট্রো থেকে চালক-সহ অন্য বিভাগের যে সব কর্মী গিয়েছেন, তাঁদের সর্বতো ভাবে প্রস্তুতি সেরে মহড়ায় নামতে বলা হয়েছে। দিন কয়েক আগে নিজের টুইটে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী বাবুল-সুপ্রিয় মেট্রোর উদ্বোধন নিয়ে তাড়াহুড়ো না করার কথা জানিয়েছিলেন। মেট্রো সূত্রে খবর, চলতি মহড়া দৌড় নিয়ে তাড়াহুড়ো না করলেও তাকে সর্বতো ভাবে ত্রুটিমুক্ত রাখার চেষ্টা হচ্ছে। সে জন্যই এক টানা ১০ দিন ধরে ওই মহড়ার আয়োজন করা হয়েছে। এর আগে কখনওই এত লম্বা সময়ের জন্য ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় মহড়া চলেনি। আধিকারিকেরা কেউই নতুন করে ‘ফেল’ করার বোঝা ঘাড়ে নিতে চান না।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এক মেট্রো আধিকারিক বলেন, ‘‘ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো সারা দেশে আলোচিত প্রকল্প। বৌবাজারের ঘটনায় প্রকল্পের সুনামে ধাক্কা লেগেছে। এখন অন্তত নির্বিঘ্নে মেট্রো চলাচল শুরু হলে তার কিছুটা পুনরুদ্ধার হয়।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন