মহিলাদের কটূক্তি করা এবং মাদক় খাওয়ার প্রতিবাদ করায় ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের এক ছাত্রকে ছুরির কোপ মারার অভিযোগ উঠল। ওই ছাত্রের গলা, পেট এবং বুকথেকে এতটাই রক্তক্ষরণ হয়েছেযে তাঁকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে সল্টলেকের করুণাময়ীতে একটি হাউজিং কমপ্লেক্সে এই ঘটনা ঘটে।

ওই বহুতলের ছাদে প্রায় প্রতিদিন একদল যুবক মদ এবং মাদকের আসর বসাত বলে অভিযোগ। ওই রাতেও অভিযুক্তরা ছাদে আসর বসায়। তখনই প্রতিবাদ করে অঙ্কিত কুদরুওয়াদ নামে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র। কেন তারা ওই হাউসিং কমপ্লেক্সের মহিলাদের কটূক্তি করে,কেনই বা তারা প্রতিদিন মাদকের আসর বসায়,এ নিয়ে সরব হন অঙ্কিত। এর পরেই কয়েকজন যুবক তাঁকে ছাদে ফেলে মারধর শুরু করে। সেখান থেকে টানতে টানতে নীচে নামিয়ে আনা হয়। অভিযোগ, তারা ছুরি দিয়ে ওই ছাত্রের শরীর ক্ষতবিক্ষত করে দেয়।

স্থানীয় বাসিন্দারা রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় অঙ্কিত একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ওই বহুতলে পেইং গেস্ট হিসাবে ভাড়া থাকতেন সল্টলেকে একটি বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ছাত্র অঙ্কিত। তদন্তে নামে বিধাননগর পূর্ব থানার পুলিশ। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত সুশান্ত দাস নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আরও কয়েকজনের খোঁজে তল্লাশি চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন- নেতা-সাট্টা-তোলাবাজি-দুষ্কৃতী চক্র! জয়নগর এখন ‘ক্রিমিনাল’দের মুক্তাঞ্চল​

আরও পড়ুন- জয়নগরের ছায়া আদ্রায়, মাঝ রাস্তায় পরপর গুলি করে তৃণমূল নেতাকে খুন​