নিজের তিন মাসের সন্তানকে আঁছড়ে খুন করল বাবা। অপরাধ? শিশুটি কন্যা সন্তান। ঘটনাটি ঘটেছে খাস কলকাতা শহরের বুকে।

দক্ষিন বন্দর থানা এলাকার কোলবার্থ রোডের উড়িয়াপাড়া। বন্দরে মাল বোঝাই কন্টেনার রাখার বিশাল মাঠের পাশে গজিয়ে ওঠা ঝুপড়িতে বাস সেখ রাজুর। মাস তিনেক আগে রাজুর স্ত্রী আফসারি জন্ম দেন এক কন্যা সন্তানের। নাম সুলতানি খাতুন।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকালে সাড়ে দশটা নাগাদ মত্ত অবস্থায় বাড়ি ফেরে রাজু। বন্দরের বিভিন্ন জায়গায় কাগজ কুড়িয়ে দিন গুজরান করে রাজু এবং তার পরিবার। রাজুর ঝুপড়ির সামনেই খাটিয়াতে খেলছিল সুলতানি। মত্ত অবস্থায় বাড়ি ফেরায় স্ত্রী আফসারির সঙ্গে শুরু হয় কথা কাটাকাটি, বচসা।

আরও পড়ুন: নেশার পুরিয়া লাগবে? ফোনে বললেই হাজির মাদক বিক্রেতা

আফসারি পুলিশকে জানিয়েছে, হঠাৎই ক্ষিপ্ত হয়ে খাটিয়া থেকে সুলতানিকে দু’হাতে তুলে নেয় রাজু। কেউ কিছু বোঝার আগেই আছাড় মারে খাটিয়ার উপর। তারপরই প্রচন্ড আক্রোশে মুচড়ে দিতে থাকে ওই শিশুর হাত পা ঘাড়। আফসারি বাধা দিতে গেলে তাকে মারধর করে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে উপুর্যপরি সুলতানিকে আছাড় মারে রাজু। ততক্ষণে কান্না থেমে গিয়েছে শিশুটির।

আরও পড়ুন: ঘুমন্ত অবস্থায় ধর্ষণের চেষ্টা, বাবাকে কুড়ুল দিয়ে কুপিয়ে খুন করল তরুণী

কোনওমতে শিশুটিকে নিয়ে প্রথমে শিশুমঙ্গল হাসপাতালে পৌঁছন আফসারি এবং তাঁর শাশুড়ি আনোয়ারা। সেখান থেকে এসএসকেএম হাসপাতাল। জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শিশুটিকে পরীক্ষা করে জানান রাস্তাতেই মৃত্যু হয়েছে তিন মাসের সুলতানার। সেখান থেকে দেহ নিয়ে ফের বাড়ি ফিরে যান আনোয়ারা এবং আফসারি।

পুলিশ সূত্রে খবর, ততক্ষণে ঘটনার কথা জানতে পেরেছেন এলাকার অন্য বাসিন্দারাও। তাঁরাই পাকড়াও করেন রাজুকে। এলাকার মানুষের হাতে মারধরও খায় সে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে রাজুকে। পুলিশ সূত্রে খবর, জেরায় রাজু জানিয়েছে, কন্যা সন্তান হওয়ার ক্ষোভ থেকেই সে ওই কাজ করেছে। রাজুর বিরুদ্ধে খুনের মামলা শুরু করেছে পুলিশ।