খালি পড়ে় প্রায় পঞ্চাশ শতাংশ ফায়ারম্যানের পদ। গোটা কলকাতায় অগ্নিনির্বাপণের কাজ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে দমকল দফতর। তাই আরও বেশি তরুণকে নিয়োগ করতে চান দমকল মন্ত্রী জাভেদ খান। সেই জন্যই ২০০৩ সালের ফায়ার সার্ভিস আইনের বেশ কিছু বিষয় বদলাতে চলেছে দমকল। রাজ্য বিধানসভার আগামী শীতকালীন অধিবেশনে নতুন আইন পাশ করানোর জন্য প্রস্তুতি শুরু করেছে দফতর। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।

সম্প্রতি নবান্নে জাভেদ খান জানান, এখন নতুন করে আইন তৈরি করতে হবে। বাম শাসনে এই দফতরে সেই ভাবে কর্মী নিয়োগ হয়নি। ন’হাজার দমকল কর্মীর মধ্যে বেশির ভাগই ফায়ারম্যান। এই ফায়ারম্যানদের প্রায় ৪২ শতাংশ পদ খালি পড়ে রয়েছে। যাঁরা আগুন নেভানোর কাজ করেন, তাঁদের বেশির ভাগের বয়স ৪৫-এর উপরে। জাভেদবাবু বলেন, ‘‘এ কাজে তরুণদের বেশি করে ব্যবহার করা উচিত। ৪৫ বছরের উপরে যাঁদের বয়স, তাঁদের অফিসের কাজে নিয়োগ করা দরকার।’’

মন্ত্রী আরও জানান, সম্প্রতি সিভিল ডিফেন্সের স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ দিয়ে দেড় হাজার জনকে দমকলে আগুন নেভানোর কাজে নিয়োগ করা হয়েছে। মন্ত্রীর কথায়, ‘‘কলকাতা এবং শহরতলি-সহ কয়েকটি জেলায় নতুন ২৮টি দমকলকেন্দ্র তৈরির কাজ চলছে। ২১টির কাজ দ্রুত এগোচ্ছে। একটা দমকলকেন্দ্রে ৬৪ জন কর্মীর প্রয়োজন হয়। লোক নিয়োগ না করলে কী ভাবে চলবে? কেন্দ্রকে পরিকাঠামো উন্নয়নে টাকা বরাদ্দ করতে হবে। হিসেব পাঠিয়ে কেন্দ্র থেকে কিছু বরাদ্দ মিলেছে। আরও টাকা দরকার।’’