লেকটাউন থানা এলাকায় যশোর রোডের কাছে একটি আবাসনের এক ফ্ল্যাটে বুধবার দুপুরে আগুন লাগে। খবর পেয়ে দ্রুত ছ’টি দমকলের ইঞ্জিন পরপর ঘটনাস্থলে যায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসতে সন্ধ্যা পেরিয়ে যায়। ঘটনায় হতাহতের কোনও খবর নেই। 

স্থানীয় সূত্রের খবর, এ দিন বাঙুর এলাকার এক আবাসনের ডি ব্লকে আগুন লাগে। ওই বহুতলের চার তলার একটি ফ্ল্যাটে রান্নার কাজ চলছিল। দুপুর দেড়টা নাগাদ আচমকা ধোঁয়ায় ভরে যায় রান্নাঘর। আতঙ্কে বাড়ির লোকেরা বাইরে বেরিয়ে পড়েন। রান্নাঘরের মধ্যে আগুন ক্রমশ ছড়িয়ে পড়তে থাকে। আতঙ্কে ওই বহুতলের বিভিন্ন ফ্ল্যাট থেকে বাসিন্দারা নীচে নেমে পড়েন। দমকলকর্মীরা ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে চারতলা থেকে দু’জন বয়স্ককে উদ্ধার করে নীচে নামিয়ে আনেন। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আরও দু’টি ইঞ্জিন পরে ঘটনাস্থলে গিয়েছিল।

স্থানীয় সূত্রের খবর, চারদিক ধোঁয়ায় ভরে যাওয়ায় প্রাথমিক ভাবে আগুনের উৎসস্থলে পৌঁছতে কিছুটা সমস্যায় পড়েন দমকলকর্মীরা। যশোর রোডের কাছে সরু গলি ধরে ওই আবাসনে পৌঁছতেও সমস্যায় পড়ে দমকলের গাড়িগুলি। রাজেশ ঝা নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, দুপুর দেড়টা নাগাদ ওই ফ্ল্যাট থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখেন তাঁরা। কিছু ক্ষণের মধ্যেই খবর পেয়ে দমকলকর্মীরা চলে আসেন। স্থানীয় যুবকেরাও আগুন নেভাতে দমকলকর্মীদের সহযোগিতা করেন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। তিনি জানান, সম্ভবত রান্নাঘর থেকেই আগুন লেগেছিল। দমকলকর্মীরা দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে সমর্থ হন। তবে কী ভাবে আগুন লাগল, তা খতিয়ে দেখা হবে। পাশাপাশি তিনি জানান, আবাসনে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা ছিল কি না, তা-ও খতিয়ে দেখা হবে।