সকালেই কাউন্সিলর হলেন ফিরহাদ হাকিম! তথ্যভ্রান্তি নজরে আসার পরে সোমবার সকালে তড়িঘড়ি ৮২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে ফিরহাদের নাম কলকাতা পুরসভার ওয়েবসাইটে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। পুর প্রশাসন সূত্রের খবর, ভবিষ্যতে যাতে এমন ভুল তথ্য না লেখা হয়, তাতে বিশেষ ভাবে নজর দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে। যদিও পুরো ঘটনা প্রকাশ্যে আসায় রীতিমতো ‘অস্বস্তি’তে পুর কর্তৃপক্ষ।

গত জানুয়ারিতে ৮২ নম্বর ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পরেও পুরসভার ওয়েবসাইটে রবিবার পর্যন্ত ফিরহাদের নাম ছিল না। ওয়েবসাইট অনুযায়ী, ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ছিলেন প্রণব বিশ্বাসই। সোমবার এ নিয়ে খবর প্রকাশিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই প্রয়োজনীয় সংশোধন করেন পুর কর্তৃপক্ষ। পুর কমিশনার খলিল আহমেদ জানান, তথ্য আপডেট করার ব্যাপারে ভবিষ্যতে সতর্ক থাকা হবে।

প্রসঙ্গত, পুরনো পুর আইন অনুযায়ী কাউকে মেয়র হতে গেলে অবশ্যই কাউন্সিলর হতে হবে। কিন্তু গত বছরের সংশোধিত পুর আইন বলছে, কেউ মেয়র হতেই পারেন, তবে ছ’মাসের মধ্যে তাঁকে কাউন্সিলর হয়ে জিতে আসতে হবে। ডিসেম্বরে মেয়র পদে শপথগ্রহণের পরে জানুয়ারিতে ৮২ নম্বর ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর হিসেবে জিতেছিলেন ফিরহাদ।কিন্তু পুরসভার ওয়েবসাইটে রবিবার পর্যন্ত তার উল্লেখ ছিল না।

পাশাপাশি ওয়েবসাইটে বরো চেয়ারম্যানের নামও ভুল ছিল। তা-ও সংশোধন করা হয়েছে। এত দিন আট নম্বর বরোর চেয়ারম্যান হিসেবে লেখা ছিল বৈশ্বানর চট্টোপাধ্যায়ের নাম। যদিও বৈশ্বানরবাবু মেয়র পারিষদ হওয়ার পরে ওই পদ ছেড়ে দিয়েছেন। তাঁর জায়গায় এসেছেন সন্দীপ বক্সী। 

কিন্তু পুরনো তথ্যই এত দিন ওয়েবসাইটে ছিল। এক পুরকর্তা বলেন, ‘‘মেয়র হিসেবেও এর আগে ফিরহাদ হাকিমের নাম মেয়রদের নামের তালিকায় ঠিক সময়ে যোগ হয়নি। ওই ঘটনার পরেই তো সতর্ক হওয়া উচিত ছিল। তার পরেও এই ভুল যে কী ভাবে হল, বোঝা গেল না! তবে শেষ পর্যন্ত যে সংশোধন হয়েছে, সেটাই রক্ষে।’’