ভরদুপুরে পার্ক স্ট্রিটের মতো রাস্তায় শ্লীলতাহানির চেষ্টা করা হল এক তরুণীর। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই তিনি ফোন করেন কলকাতা পুলিশের ১০০ নম্বরে। পুলিশের তৎপরতায় কিছু ক্ষণের মধ্যেই গ্রেফতার হয় অভিযুক্ত ব্যক্তি।

পুলিশ সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার দুপুর সওয়া ১টা নাগাদ মধ্য কলকাতার মির্জা গালিব স্ট্রিট দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন ওই তরুণী। তিনি সার্ভে পার্ক থানা এলাকার বাসিন্দা। রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় এক ব্যক্তি তাঁর পথ আটকানোর চেষ্টা করে। বাধা দেওয়ায় ওই ব্যক্তি তরুণীর শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ। এর পরেই ১০০ নম্বর ডায়াল করে অভিযোগ জানান তিনি। সঙ্গে সঙ্গে খবর যায় শেক্সপিয়র সরণি এবং পার্ক স্ট্রিট থানায়। দুই থানার ওসি-ই ঘটনাস্থলে পৌঁছন। মির্জা গালিব স্ট্রিট থেকে অভিযুক্ত মহম্মদ শাদিসকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তি ভবঘুরে।ধৃতের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪, ২৫৪এ এবং ৫০৯ ধারায় মামলা রুজু হয়েছে।

আরও পড়ুন: শুধু এএসআই নয়, মুচিপাড়ার অপহরণ-লুঠে জড়িত আরও এক পুলিশকর্মী

 

বেশ কিছু দিন ধরেই এই ধরনের ঘটনায় পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ উঠছিল। পুলিশের ভূমিকা নিয়ে ফেসবুকে সরবও হয়চ্ছিলেন নিগৃহীতারা। সেই তালিকায় প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া ঊষসী সেনগুপ্ত থেকে শুরু করে মহিলা বক্সার সুমন কুমারীও রয়েছেন। তা নিয়ে সমালোচনাও কম হয়নি। কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা পুলিশ কর্মীদের নির্দেশ দিয়েছিলেন, কোনও অভিযোগ এলেই দ্রুত পদক্ষেপ করতে হবে। তার পর থেকেই আরও সতর্ক হয় থানাগুলি। এ দিনের ঘটনায় পুলিশি তৎপরতা ছিল চোখে পড়ার মতো।