কোনও সময়ে ঝড়ে গাছ পড়ে যাচ্ছে, কোথাও আবার বিভিন্ন প্রকল্পের কাজের জন্য কাটা হচ্ছে গাছ। পরিচিত এই ছবিটা সম্প্রতি পাল্টাতে শুরু করেছে বেশ কিছু জায়গায়। গাছ না কেটে সেটিকে স্থানান্তরিত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

সে পথে হেঁটেই সোমবার নিউ টাউনে একটি পলাশ গাছ স্থানান্তরিত করা হল। ওই এলাকার বি এফ ব্লকে একটি বহুতলের প্রবেশপথের মুখে ছিল গাছটি। ফলে বাড়িতে ঢুকতে-বেরোতে মুশকিলে পড়ছিলেন বাসিন্দারা। সমস্যা সমাধানে হিডকো-র কাছে আবেদন করে ওই পরিবার।

হিডকো সূত্রের খবর, আবেদনের ভিত্তিতে গাছটি সরানোর সিদ্ধান্ত হয়। বন দফতরের সহযোগিতায় এ দিন সংস্থার কর্মীরা কাজ শুরু করেন। গোড়া থেকে মাটি সরিয়ে গাছটি তোলা হয়। প্রথমে ভাবা হয়েছিল, ইকো পার্ক বা অন্যত্র গাছটি নিয়ে গিয়ে ফের রোপণ করা হবে। কিন্তু ওই বহুতলের বাসিন্দারা জানান, বাড়ির কাছেই কোথাও গাছটি রাখা হোক। তাঁরাও সেটি রক্ষণাবেক্ষণে সহায়তা করবেন। এর পরে গাছটিকে পুরনো জায়গার কাছেই রোপণ করা হয়।

নিউ টাউন উপনগরীকে পরিবেশবান্ধব হিসেবে গড়ে তোলার কথা আগেই জানিয়েছে প্রশাসন। হিডকো-র এক কর্তা জানান, সমীক্ষা চালিয়ে নিউ টাউনে গাছ গণনা করা হয়েছে। দেখা গিয়েছে, ছ’ফুটের বেশি উঁচু গাছের সংখ্যা প্রায় ৩৬ হাজার। এর পরেই ঠিক হয়, কোথাও কোনও প্রকল্প হলে, পুর পরিষেবা জনিত কারণে বা যাতায়াতের সমস্যা হলে গাছ কাটা হবে না। বরং তা অন্যত্র নিয়ে যাওয়া হবে। সেই পরিকল্পনার অঙ্গ হিসেবেই এ দিনের কাজ হয়েছে। বাসিন্দারাও এতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তাঁদের বক্তব্য, যে ভাবে দূষণ বাড়ছে, তাতে সবুজ রক্ষার ক্ষেত্রে এমন প্রচেষ্টা ছড়িয়ে পড়া জরুরি।