ইদুজ্জোহার আয়োজন করছেন। আবার তাঁরাই কয়েক দিন পরে পুজোর কাজে কাঁধে কাঁধ মেলাবেন। তাঁরা সংশোধনাগারের আবাসিক।

ধর্ম নির্বিশেষে যে কোনও উৎসবই ভিন্ন মাত্রা পায় সংশোধনাগারে। তার স্বাদ উপভোগে কেউ যেন বাদ না পড়েন, সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখেন সংশোধনাগার
কর্তৃপক্ষ। বাদ পড়ছে না আজ, বুধবারের ইদুজ্জোহাও। তার সঙ্গে সাযুজ্য রেখে বুধবার বিকেলে কাওয়ালিতে দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার মাতাবেন আবাসিকেরাই। থাকবে অন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও।

বিভিন্ন উৎসব বা বিশেষ দিনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হলেও এই প্রথম কাওয়ালি গানের সাক্ষী থাকবেন দমদম সংশোধনাগারের আবাসিকেরা। দিন সাতেক ধরে কাওয়ালির প্রস্তুতিতে তালি আর ঢোলক সহযোগে তালিম নিয়েছেন তাঁরা। বুধবারের অনুষ্ঠানের জন্য মঙ্গলবারও নাওয়া-খাওয়া ভুলে মহড়ায় ব্যস্ত ছিলেন দশ-বারো জন আবাসিক। যাঁদের বেশির ভাগই যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত।
শুধুমাত্র সংখ্যালঘুরাই নন, তাঁদের সঙ্গে সুর মেলাবেন অন্যেরাও। কারা দফতরের এক কর্তার কথায়, ‘‘দুই সম্প্রদায়ের আবাসিকেরাই কাওয়ালির প্রস্তুতি নিয়েছেন। এই প্রথম আয়োজনের কারণে ওঁদের মধ্যেও একটু ভয়ও আছে। কিন্তু সে সব কাটিয়ে ভাল করবেন বলেই আমাদের আশা।’’ পাশাপাশি, অন্য কয়েকটি গানের অনুষ্ঠানও রয়েছে।

উৎসবের আমেজের সঙ্গে তাল মিলিয়েই তৈরি হয়েছে দু’বেলার ভোজের মেনু। দুপুরে পাঁঠার মাংস, পাঁচমিশেলি তরকারি, মাছের মাথা দিয়ে মুগডাল, চাটনি আর রসগোল্লা— সহযোগে ইদুজ্জোহার আস্বাদ উপভোগ করবেন আবাসিকেরা। রাতে ফের তরকারি, ডালের সঙ্গেই রুই মাছের পদও থাকবে।

দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারের মতো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের তেমন প্রস্তুতি না থাকলেও ভোর ৪টে থেকে মধ্যাহ্নভোজনের আয়োজনে ব্যস্ত থাকবেন প্রেসিডেন্সি কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারের বাবলি, তপন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে আকাশ আলি, শেখ জামালেরা। সেখানে ফ্রায়েড রাইস, চিলি চিকেন আর মিষ্টিতেই ইদুজ্জোহার খাওয়া সারবেন আবাসিকেরা। কোনও কোনও উৎসবের ক্ষেত্রে বিশেষ রাঁধুনি আনা হয়। এ বারও সে ভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছে প্রেসিডেন্সি কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার। ইদুজ্জোহার পাশাপাশি দুর্গাপুজোর আয়োজনে একটি কমিটি তৈরি হয়। সেখানে থাকেন দুই সম্প্রদায়ের আবাসিকেরা।

আলিপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে অবশ্য ইদুজ্জোহাতে তেমন কিছুর পরিকল্পনা নেই কর্তৃপক্ষের। এক কারা কর্তার মতে, ‘‘ইদ-উল ফিতারের সময়ে একমাসের উপবাস থাকে। সেই সময়ে বড় আয়োজন থাকে। আর বিভিন্ন উৎসব বা বিশেষ দিনে তো থাকেই।’’