• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

শিবসেনা সাংসদকে ‘হুমকি’, ধৃত কঙ্গনার ভক্ত 

Kangana Ranaut
—ফাইল চিত্র।

শিবসেনা সাংসদ সঞ্জয় রাউতকে ফোনে হুমকি দেওয়ার অভিযোগে কলকাতা থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করল মুম্বই পুলিশের অ্যান্টি-টেররিস্ট স্কোয়াড (এটিএস)। ধৃতের নাম পলাশ বসু। বৃহস্পতিবার রাতে যাদবপুর থানা এলাকার রসা রোড থেকে তাঁকে ধরা হয়। পলাশ পেশায় একটি মাল্টিজিমের প্রশিক্ষক। মুম্বই পুলিশ তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে মামলা রুজু করেছে। তাদের দাবি, পলাশ অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউতের ভক্ত। শিবসেনার সঙ্গে কঙ্গনার বিরোধ এখন চরমে। সেই কারণেই পলাশ এই কাজ করেছেন।

সরকারি কৌঁসুলি শুভেন্দু ঘোষ জানান, শুক্রবার ধৃতকে আলিপুর আদালতের মুখ্য বিচারবিভাগীয় বিচারকের এজলাসে তোলা হয়। তাঁকে ট্রানজ়িট রিমান্ডে মুম্বই নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছেন বিচারক। ধৃতের আইনজীবী অনির্বাণ গুহঠাকুরতার দাবি, ‘‘নির্দিষ্ট ভাবে কোন কোন দিন পলাশবাবু ওই সাংসদকে ফোন করেছিলেন, তা জানায়নি মুম্বই পুলিশ। শুধুমাত্র ফোনে হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।’’

মুম্বই পুলিশ সূত্রের খবর, এ মাসের দুই থেকে আট তারিখের মধ্যে ‘ভয়েস ওভার ইন্টারনেট প্রোটোকল’ প্রযুক্তি ব্যবহার করে পলাশ দু’বার ফোন করেন। একটি মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর অফিসে এবং অন্যটি খোদ সঞ্জয় রাউতের মোবাইলে। প্রথম ফোনের সংযোগ ঠিক মতো হয়নি। অভিযোগ, দ্বিতীয় ফোনে কঙ্গনার সঙ্গে সঞ্জয়ের বিরোধের প্রসঙ্গ তুলে পলাশ নিজেকে দাউদ ইব্রাহিমের লোক বলে পরিচয় দেন। পুলিশের দাবি, সাংসদকে ফোনে পলাশ হুমকি দিয়ে বলেন, তিনি মুম্বইয়ের বাসিন্দা। কঙ্গনার সঙ্গে বিরোধ না মেটালে তাঁকে দেখে নেওয়া হবে। ওই হুমকি ফোন আসার পরেই তদন্তে নামে মুম্বই এটিএস। ফোন কলের ‘ইন্টারনেট প্রোটোকল’ (আইপি) অ্যাড্রেস থেকে পলাশ বসুকে চিহ্নিত করা হয়। বৃহস্পতিবারই মুম্বই পুলিশের ওই দলটি কলকাতায় আসে। স্থানীয় পুলিশের সাহায্যে গ্রেফতার করা হয় পলাশকে। যদিও পলাশের আইনজীবীরা দাবি করেছেন, তাঁদের মক্কেলকে ফাঁসানো হয়েছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন