বিজন সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা আপাতত স্থগিত রাখল কেএমডিএ। পুজোর পরে স্বাস্থ্য পরীক্ষা হবে। লালবাজারের অনুরোধেই এই সিদ্ধান্ত বলে খবর। আগামী শুক্রবার থেকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বিজন সেতু বন্ধ রাখার কথা ছিল।

পুলিশ সূত্রের খবর, সম্প্রতি চিংড়িঘাটা-সহ একাধিক উড়ালপুলের স্বাস্থ্য পরীক্ষার কারণে সেগুলি বন্ধ রাখায় শহরে তীব্র যানজট হয়েছে। তা থেকে শিক্ষা নিয়েই কেএমডিএ-কে বিজন সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা স্থগিত রাখতে অনুরোধ করা হয়েছিল। পুলিশ সূত্রের দাবি, কেএমডিএ সপ্তাহান্তে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করছে। কিন্তু পুজোর আগে সপ্তাহান্তে গড়িয়াহাটে এমনিতেই মানুষ ও গাড়ির ভিড় থাকবে। বিজন সেতু বন্ধ হলে কসবা ও গড়িয়াহাটের মূল যোগসূত্রটাই ছিন্ন হয়ে যাবে। ওই রাস্তা দিয়ে যে সব বাস ও গাড়ি চলে, তা ঘোরাতে হবে। সে ক্ষেত্রে গড়িয়াহাটের সমস্যা বাড়বে। পার্ক সার্কাস বা সৈয়দ আমির আলি অ্যাভিনিউ দিয়েও ওই বাস, মিনিবাস, ট্যাক্সি চালানো সম্ভব নয়। যাদবপুর থেকে আসা বাসও ঘোরানো কঠিন। পুলিশ জানিয়েছে, পুজোর পরে ওই এলাকার চাপ কিছুটা কমবে। সে সময়ে নতুন ভাবে যান চলাচলের পরিকল্পনা করে বিজন সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা হবে।