যাদবপুর-ঢাকুরিয়া অঞ্চলে যানজট কমাতে সেখানে একটি উড়ালপুল তৈরির প্রস্তাব কলকাতা পুলিশের তরফে দেওয়া হয়েছিল কেএমডিএ-কে। সেই সূত্র ধরে বুধবার প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোডে প্রায় চার কিলোমিটার দীর্ঘ ওই প্রস্তাবিত উড়ালপুলের বিভিন্ন জায়গা ঘুরে দেখলেন কেএমডিএ, রাইট্‌স এবং কলকাতা পুলিশের আধিকারিকেরা। কাজ শুরু হলে কোথায় কোথায় সমস্যা হতে পারে, তা-ও খতিয়ে দেখেন তাঁরা।

পুলিশ জানিয়েছে, লালবাজারের প্রস্তাবে বলা হয়েছিল, পশ্চিমমুখী যান চলাচলের জন্য উড়ালপুলটি করা হোক প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড এব‌ং দেশপ্রাণ শাসমল রোডের মোড় থেকে প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড কানেক্টরে গরফার সাঁপুইপাড়া মোড়ের আগে পর্যন্ত। আর পূর্বমুখী যান চলাচলের জন্য সেটি প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড কানেক্টরের মণ্ডল ব্রিজ থেকে শুরু হয়ে ঢাকা কালীবাড়ি পর্যন্ত আসুক। পুলিশ সূত্রের খবর, একটি উড়ালপুল হলেও রাস্তা চওড়া না হওয়ায় সেটির দু’প্রান্ত একই জায়গা থেকে শুরু এবং শেষ হবে না।

এর আগেও ওই এলাকায় যান চলাচল মসৃণ করার জন্য যাদবপুর থানার মুখে দু’টি উড়ালপুল তৈরির কথা বলা হয়েছিল। তার একটি দক্ষিণাপণ থেকে শুরু হয়ে আসার কথা ছিল সুকান্ত সেতু পর্যন্ত। অন্যটি প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড কানেক্টরের জীবনানন্দ সেতু থেকে ঢাকা কালীবাড়ি পর্যন্ত।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই দুই উড়ালপুল তৈরিতে কিছু সমস্যা থাকায় নতুন উড়ালপুলের প্রস্তাব দেওয়া হয়। তার পরেই এ দিনের পরিদর্শন। সূত্রের খবর, জীবনানন্দ সেতুর কাছে জমির সমস্যা রয়েছে। একই সঙ্গে উড়ালপুলটি তৈরি করতে হলে প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড কানেক্টরে তিনটি বাড়ি ভাঙতে হবে। কেএমডিএ-র এক কর্তা জানান, সব দিকই খতিয়ে দেখা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আরও বিস্তারিত সমীক্ষা করার জন্য বলা হয়েছে রাইট্‌সকে।