বর্ষার সময়ে মাটির নীচ থেকে পলি তোলার কাজ করা যাবে না। শহরের নিকাশি নালা পরিষ্কারের জন্য পলি বা মাটি তোলার কাজ এপ্রিলের মধ্যেই শেষ করতে হবে। এমনই নির্দেশ জারি করল পুরসভা। সম্প্রতি নিম্নচাপের সময়ে বন্দর এলাকা-সহ কয়েকটি ওয়ার্ডের জল জমা নিয়ে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা। অভিযোগ ওঠে, নিকাশির হাল খারাপ থাকার কারণেই ওই এলাকার দু’-তিনটি ওয়ার্ডে অল্প বৃষ্টিতেই জল জমে যায়। এর পরেই মেয়র ফিরহাদ হাকিম নিকাশি দফতরের অফিসারদের ডেকে জানতে চান, এই পরিস্থিতির কারণ। 

পুরসভা সূত্রের খবর, প্রয়োজন মতো মাটির নীচ থেকে পলি তোলার কাজ করা হয়ে থাকে। মেয়রের কাছে জানানো হয়, একাধিক বার বর্ষার সময়েও পলি তোলার কাজ হয়েছে। মেয়র বলেন, ‘‘বর্ষার সময়ে পলি তোলার মানে হয় না। ওই পলি রাস্তার ধারে জমা হয়ে ফের জলের তোড়ে নালায় গিয়ে পড়ে।’’ তখন পলি তোলা মানেই টাকার অপচয় বলে মনে করেন তিনি।

মেয়র নির্দেশ দেন, পলি তোলার কাজ এপ্রিলের মধ্যেই শেষ করতে হবে। একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘বন্দরের একাধিক ওয়ার্ডে নিকাশির হাল খারাপ। জল জমা নিয়েও ক্ষোভ বাড়ছে।’’ ওই সব এলাকায় নিকাশির উন্নয়নে ইঞ্জিনিয়ারদের আরও সতর্ক থাকতে বলেন তিনি।