কলকাতা বিমানবন্দরে বিমানের টেকনিশিয়ান রোহিত বীরেন্দ্র পাণ্ডের অপমৃত্যুর ঘটনায় বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটি বা কারও কোনও গাফিলতি ছিল কি না, ডিরেক্টরেট জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশন বা ডিজিসিএ-র কাছে তা জানতে চাইল পুলিশ। কলকাতা বিমানবন্দরের খবর, স্থানীয় পুলিশের এই অনুরোধের কথা দিল্লিকে জানানো হয়েছে। যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার, তা সদর দফতর থেকেই নেওয়া হবে। 

মুম্বইয়ের বাসিন্দা রোহিত (২২) মাস চারেক আগে কলকাতায় স্পাইসজেট সংস্থায় যোগ দেন। মঙ্গলবার গভীর রাতে বিমানবন্দরে দাঁড়িয়ে থাকা একটি সিআরজে বিমান সারানোর সময় আচমকা চাকা-ঘরের দরজা বন্ধ হয়ে মারা যান তিনি। বৃহস্পতিবার সকালে মুম্বইয়ে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে। বিমানটির একটি অংশ গ্যাস-কাটার দিয়ে কাটা হয়। বিমানটি কিছু দিন কলকাতাতেই থাকবে। তদন্ত শেষে ডিজিসিএ-র ছাড়পত্র পেলে সেটি ফের উড়বে।

রোহিতের মৃত্যু অস্বাভাবিক। তাই বিমানবন্দর থানার পুলিশ বুধবার প্রাথমিক তদন্ত শুরু করে। বিমানের ছবি নেওয়া, ভিডিয়ো করা, দুর্ঘটনার সময়ের ছবি জোগাড়ের পাশাপাশি তদন্তকারীরা কয়েক জন ইঞ্জিনিয়ারের সঙ্গে কথা বলেন। বিমানবন্দর সূত্রের খবর, দুর্ঘটনার সময় ঘটনাস্থলে রোহিত ছাড়াও তিন জন ছিলেন। তাঁদের বয়ান নথিভুক্ত করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাত পর্যন্ত বিমানবন্দর থানায় কোনও অভিযোগ আসেনি। পরে কোনও অভিযোগ এলে এই তথ্যের ভিত্তিতে তদন্ত করতে সুবিধা হবে বলে পুলিশি সূত্রে জানানো হয়।

সাধারণ ভাবে বিমান সংক্রান্ত কোনও ঘটনা-দুর্ঘটনার তদন্ত করে ডিজিসিএ। কিন্তু মঙ্গলবার রাতে রোহিতের মৃত্যুর পরে স্থানীয় পুলিশ তদন্ত শুরু করায় ডিজিসিএ তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহে নামেনি। বুধবার রাতেই অবশ্য পুলিশের তরফে ডিজিসিএ-কে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে, তাদের প্রাথমিক তদন্ত শেষ। তবে বিমানে কোনও যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল কি না, সেটা কেবল বিশেষজ্ঞেরাই বলতে পারবেন। তাই ডিজিসিএ-কে গাফিলতির দিকটি তদন্ত করে দেখতে বলা হয়েছে। একই তথ্য জানানো হয়েছে কলকাতা বিমানবন্দরের অধিকর্তা কৌশিক ভট্টাচার্যকে।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।