খাস কলকাতা থেকে উদ্ধার হল চিতাবাঘের ছাল। বেশ কিছুদিন ধরেই অভিযোগ উঠছিল কলকাতাকে কেন্দ্র বন্য পশুপাখির চোরাচালানকারীরা সক্রিয়। একইসঙ্গে বাঘের ছাল পাচারও চলছে। কিন্তু কিছুতেই হাতেনাতে পাচারকারীদের পাকড়াও করতে পারছিলেন না বন্যপ্রাণ শাখার অফিসারেরা।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শনিবার ক্রেতা সেজে হাতিবাগানে একটি বাড়িতে হাজির হন অফিসারেরা। কয়েক লাখ টাকার প্রলোভন দেখানোর পরই ঝুলি থেকে চিতা বাঘের ছাল বেরিয়ে পড়ে। গ্রেফতার করা হয় সৌরভ দাস ওরফে গোপাল এবং তপব্রত মজুমদার নামে দু’জনকে। ধৃতদের জেরা করে ওই চক্রের আরও কয়েকজনের নাম উঠে এসেছে। তাঁদের খোঁজে তল্লাশি চলছে। দু’জনের বাড়িই শ্যামবাজারে।

বন্যপ্রাণ শাখা সূত্রে খবর, উদ্ধার হওয়া চিতাবাঘের ছালটির ২০ লক্ষ টাকার বিনিময়ে বিক্রি করার চেষ্টা চলছিল। ধৃতদের আগামীকাল ব্যাঙ্কশাল কোর্টে তোলা হবে। বন্যপ্রাণ শাখার এক অফিসার বলেন, ‘‘দীর্ঘদিন ধরেই কলকাতাকে কেন্দ্র করে পশু-পাখি চোরাচালানের চেষ্টা করে চলেছে পাচারকারীরা। এর আগেও অনেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নতুন করে সক্রিয় হয়ে উঠেছিল চোরা চালানকারীরা। আমাদের কাছে খবর আসে, এক ব্যক্তি চিতা বাঘের ছাল বিক্রি করার চেষ্টা করছে। নির্দিষ্ট তথ্য হাতে আসার পর ক্রেতা সেজে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়।’’ তিনি আরও জানান, আর কারা এই চক্রে রয়েছে ধৃতদের জেরা করলে জানা যাবে।

আরও পড়ুন: পাল্টাল বইমেলার নির্ঘণ্ট

কলকাতার ঘটনা এবং দুর্ঘটনা, কলকাতার ক্রাইম, কলকাতার প্রেম - শহরের সব ধরনের সেরা খবর পেতে চোখ রাখুন আমাদের কলকাতা বিভাগে।