• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বাড়িতে লুঠ, বাধা দেওয়ায় খুন বৃদ্ধা

Murder
প্রতীকী ছবি।

এক বৃদ্ধার মৃতদেহ উদ্ধার করল পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে, দক্ষিণ শহরতলির বিষ্ণুপুর থানার বরিশাল গ্রামের ঘটনা। মৃতার নাম রিনা চক্রবর্তী (৭২)। এই ঘটনায় বিপ্লব মজুমদার নামে রিনাদেবীর এক প্রতিবেশীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশের দাবি, জেরায় বিপ্লব ওই বৃদ্ধাকে খুনের কথা স্বীকার করেছে। তদন্তকারীরা জানান, বৃদ্ধার বাড়ি থেকে খোয়া গিয়েছিল মোবাইল, সোনার গয়না ও নগদ টাকা। সেগুলি পরে উদ্ধার হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের সন্দেহ, চুরির প্রমাণ লোপাট করার জন্যই রিনাদেবীকে খুন করে বিপ্লব।

পুলিশ সূত্রের খবর, ছেলে মিঠুনের সঙ্গে থাকতেন রিনাদেবী। ওই রাতে সাড়ে ১০টা নাগাদ মায়ের সঙ্গে ফোনে কথাও বলেছিলেন তিনি। বাড়ি ফিরে মিঠুন দেখেন আলমারি খোলা। ঘরের সব জিনিস ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। বিছানায় বালিশ চাপা দেওয়া অবস্থায় পড়ে রয়েছে মায়ের দেহ।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানিয়েছে, চুরি করার উদ্দেশে বিপ্লব রিনাদেবীর বাড়ির ছাদের দরজা দিয়ে ভিতরে ঢুকেছিল। বৃদ্ধা তাকে চিনে ফেলায় সে তাঁর মাথায় ভারী কিছু দিয়ে আঘাত করে খুন করে। ওই যুবকের বিরুদ্ধে অসামাজিক কাজের অভিযোগ ছিল বলেও পুলিশ জানায়।

তদন্তকারীদের কথায়, শুক্রবার সকালে বিপ্লবের স্ত্রী সুপর্ণা একটি বড় ব্যাগে কিছু জিনিস নিয়ে বেরোচ্ছিলেন। তা দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হওয়ায় তাঁর ব্যাগটি কেড়ে নিয়ে তল্লাশি করেন। তদন্তকারীদের দাবি, তখনই উদ্ধার হয় রিনাদেবীর মোবাইল, গয়না ও টাকা। এর পরেই বিপ্লবকে ধরা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, অস্ত্র পাচারের অভিযোগে আগেও গ্রেফতার হয়েছিল বিপ্লব। পুলিশের অনুমান, সম্প্রতি বাজারে অনেক দেনা হয়ে গিয়েছিল ওই যুবকের। তা মেটাতেই সে রিনাদেবীর বাড়িতে চুরির পরিকল্পনা করে এবং ওই বৃদ্ধাকে খুন করার পরে টাকা, গয়না ও মোবাইল লুঠ করে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন