• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রাজ্যের টাকায় মাঝেরহাটে একটি লেভেল ক্রসিং তৈরি করা সম্ভব, জানাল রেল

Majerhat
শুরু হল মাঝেরহাটে ব্রিজ তৈরির তোড়জোড়। —নিজস্ব চিত্র

Advertisement

পুজোর আগে পথদুর্ভোগ কমার কোনও সম্ভাবনাই নেই। মাঝেরহাট ব্রিজ বিপর্যয়ের পর লেভেল ক্রসিংয়ের মাধ্যমে খালের উপর দিয়ে দু’টি রাস্তা তৈরির পরিকল্পনা নিয়েছিল রাজ্য। কিন্তু রেলের তরফে রাজ্যকে লিখিতভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, মাঝেরহাটে একটি লেভেল ক্রসিংয়ের ছাড়পত্র দেওয়া হবে। ওই লেভেল ক্রসিংয়ের যাবতীয় খরচা দিতে হবে রাজ্যকেই। ওই কাজ করতে কত টাকা খরচ হবে, তা যদিও নির্দিষ্ট ভাবে বলা হয়নি। তবে, সেই টাকা দিতে রাজ্যের আপত্তি নেই বলেও নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে।

পূর্ব রেলের জনসংযোগ আধিকারিক রবি মহাপাত্র বুধবার বলেন, “একটি লেভেল ক্রসিং করার অনুমতি দিয়েছে রেল বোর্ড। ইতিমধ্যেই কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। কত টাকা খরচ হবে, তা রাজ্যকে শীঘ্রই জানিয়ে দেওয়া হবে।” তবে সেই কাজ যে কোনও ভাবেই পুজোর আগে শেষ করা সম্ভব নয়, তা-ও জানিয়ে দিয়েছে রেল।

রেলের তরফে একটি মাত্র লেভেল ক্রসিংয়ের ছাড়পত্র দেওয়া নিয়ে নতুন করে জটিলতাও তৈরি হয়েছে। রাজ্য প্রথমে মাঝেরহাট ব্রিজের পাশ দিয়ে ৮ মিটার চওড়া একটি রাস্তা তৈরি করতে চেয়েছিল। সেই রাস্তা তৈরির কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। ওই এলাকায় খালের গভীরতা কত, ক’টা হিউম পাইপ লাগবে, সেই সব সংক্রান্ত আরও খুঁটিনাটি বিষয়ে পূর্ত দফতর অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে। কিন্তু, রেল জানিয়ে দিয়েছে, ওই রাস্তায় লেভেল ক্রসিং কোনও ভাবেই সম্ভব নয়। অনেক জটিলতা রয়েছে। তার পরিবর্তে দুর্গাপুর ব্রিজের কাছে খালের উপর দিয়ে যে আর একটি বিকল্প রাস্তা (আলিপুরের দিকে রাজা সন্তোষ রায় রোড এবং নিউ আলিপুরের দিকে হুমায়ুন কবীর সরণির সংযোগ হবে) তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে, সেখানে লেভেল ক্রসিং সম্ভব। যদিও এই রাস্তা তৈরি করা গেলে, বড় গাড়ি যাতায়াত করতে পারবে না। ছোট গাড়িই চলাচল করবে। রাজ্য সরকারের এক আধিকারিক বলেন, “ওখানে দুই লেনের রাস্তা তৈরি করতেও সমস্যা হবে।’’যদিও দু’টি রাস্তা তৈরির বিষয়ে এখনও আশাবাদীরাজ্য। কিন্তু, রেল তাদের সিদ্ধান্তেই অনড় বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: মাঝেরহাটে একটাই লেভেল ক্রসিং চাইছে রেল?

আরও পড়ুন: জট কাটায় নয়া ক্রসিং তৈরির তোড়জোড়

এই জটিতলার মধ্যেই মাঝেরহাট ব্রিজ ভেঙে ফেলার কাজ শুরু করে দিয়েছে রাজ্য। বুধবার সকাল থেকে পূর্ত দফতর, পুরসভা, কেএমডিএ নিজেদের মধ্যে সমন্বয় রেখে কাজ শুরু করেছে। রাজ্যের মুখ্যসচিব মলয় দে-র নেতৃত্বাধীন কমিটির নজরদারিতে এই ব্রিজ নতুন করে তৈরি হবে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্ন থেকেঘোষণা করেছিলেন, যাতায়াতকারীদের সমস্যার কথা মাথায় রেখেই এক বছরের মধ্যে মাঝেরহাট ব্রিজ তৈরি করা হবে। যদিও এত কম সময়ের মধ্যে আদৌ ব্রিজ তৈরি করা যাবে কিনা, তা নিয়ে আগেইপ্রশ্ন উঠেছিল।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন