• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিউটি পার্লারের আড়ালে মদ বিক্রি

Liquor
প্রতীকী ছবি।

সামনে বিউটি পার্লার, ভিতরে বিদেশি মদের গুদাম!

মঙ্গলবার সকালে দক্ষিণ কলকাতার হাজরা রোডে এমনই এক জায়গার সন্ধান পেল রাজ্য আবগারি দফতর। দফতর সূত্রের খবর, ওই গুদামে হানা দিয়ে ১৯০ বোতল বিদেশি মদ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। সব মিলিয়ে যার বাজারদর প্রায় ১৫ লক্ষ টাকা। গ্রেফতার করা হয়েছে ওই পার্লারের মালিক অনিল জয়সওয়ালকে।

আবগারি দফতর জানিয়েছে, ধৃত ব্যক্তি শহরে বেআইনি মদের কারবারের পুরনো চাঁই। আগেও একাধিক বার তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাঁর একাধিক আস্তানায় হানাও দিয়েছে দফতর। সম্প্রতি দফতরের কাছে খবর আসে, লকডাউনের মধ্যে হাজরা রোডের একটি পার্লার থেকে প্রচুর দামে বিদেশি মদ বিক্রি হচ্ছে। সেই সূত্রেই আবগারির দক্ষিণ কলকাতা ডিভিশনের সুপার অভিষেক মিত্রের নেতৃত্বে একটি দল ওই ডেরায় হানা দেয়।

আবগারি দফতর সূত্রের খবর, এই সব মদ বিদেশেই তৈরি এবং বটলিং হয়। মূলত বিমানবন্দর ও বন্দরে থাকা ডিউটি ফ্রি শপ থেকে এগুলিকে শুল্ক-মুক্ত হিসেবে কেনা হয়। পরে কালোবাজারে বিক্রি করা হয়। লকডাউনে এমনিতেই সব পানশালা এবং মদের দোকান বন্ধ। নিয়মিত মদ্যপায়ীরা রীতিমতো হাহাকার করছেন। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে অনিল কয়েক গুণ দামে ওই বিদেশি মদ বিক্রি করছিলেন। আবগারির একটি সূত্রের দাবি, এর আগে তাঁর বিভিন্ন ডেরায় তল্লাশি-হানা চলায় মাস ছয়েক আগে এই পার্লারটি কেনেন অনিল। পার্লারের ব্যবসা চলায় কারও সে ভাবে সন্দেহ হয়নি।

বাজেয়াপ্ত করা মদ লকডাউনের আগেই জড়ো করা হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। আর কোথাও এমন বোতল লুকিয়ে রাখা আছে কি না, তা জানতে অনিলকে জেরা করছেন আবগারি দফতরের অফিসারেরা।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন