• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ট্রাকের উপর থেকে ছিটকে পড়ে আহত

truck

মাল বোঝাই ট্রাক। উপরে কয়েক জন বসে আছেন। কেউ আবার শুয়ে পডে়ছেন। গাড়ির সঙ্গে তাল মিলিয়ে তাঁরাও দুলে চলেছেন। পুলিশের চোখের সামনে দিয়েই যাচ্ছে ট্রাকগুলি।

কলকাতায় এই দৃশ্য খুবই পরিচিত। কিন্তু মোটর ভেহিক্যাল্‌স আইন অনুযায়ী এটি অবৈধ। এ ভাবে আইন ভাঙার মাসুল কী হতে পারে বাইপাসের এক দুর্ঘটনা সেটাই চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল।

পুলিশ জানায়, সোমবার সকালে পরমা আইল্যান্ড থেকে ই এম বাইপাস ধরে চিংড়িহাটার দিকে যাচ্ছিল কাপড় বোঝাই একটি ছোট ট্রাক। কাপড়ের উপরে বসে ছিলেন চার যুবক। মাঠপুকুরের কাছে ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রথমে একটি গাড়িকে ও পরে একটি সিগন্যাল পোস্টে ধাক্কা মারে।।

সংঘর্ষে কেউ আহত না হলেও ঝাঁকুনির জেরে কাপড়ের উপর থেকে চার যুবক ছিটকে রাস্তায় পড়ে যান। পুলিশ ওই চার জনকে ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। আহতদের নাম মহমম্দ সেলিম, মহম্মদ সইফুজ্জামান, মহম্মদ সইফুল ইসলাম এবং আইয়ুব আলি। প্রাথমিক চিকিৎসার পরে সকলকে ছে়ড়ে দেওয়া হয়। ট্রাকটিকে আটক করে গ্রেফতার করা হয়েছে চালককে। ধৃতের নাম ইয়ারাব মণ্ডল। বাড়ি হাবরায়। গাড়ির আরোহীরা কেউ আহত হননি।

এই ঘটনায় প্রশ্ন উঠেছে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে। যে নিয়ম ভাঙলে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা যায়, পুলিশ তা দেখেও কেন নিষ্ক্রিয় থাকে প্রশ্ন উঠেছে তা নিয়েই। কলকাতা পুলিশের ডিসি (ট্রাফিক) ভি সলোমন নেসাকুমারের অবশ্য দাবি, এই অভিযোগ ঠিক নয়। তিনি জানান, পুলিশ এই ধরনের ঘটনায় বহু জরিমানা করে। চালকের লাইসেন্সও বাতিল করা হয়। তাঁর কথায়, ‘‘পুলিশকর্মীদের নজরদারি আরও বাড়াতে নির্দেশ দেওয়া হবে। এই ঘটনাতেও কড়া পদক্ষেপ করা হবে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন