গুদামের কাছে বিদ্যুতের তার পোড়ানের কাজ চলছিল। আচমকাই দাউদাউ করে জ্বলতে শুরু করে টিনের গুদামটি। শুক্রবার সকালে, কসবার রাজকৃষ্ণ চ্যাটার্জি রোডের এই ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। তবে স্থানীয় বাসিন্দা এবং দমকলকর্মীদের তৎপরতায় আগুন সে ভাবে ছড়িয়ে পড়ার সুযোগ পায়নি। ফলে বড়সড় দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে গিয়েছেন স্থানীয়েরা। ঘটনায় হতাহতের কোনও খবর নেই।

কসবা পুরনো থানার কাছে রাজকৃষ্ণ চ্যাটার্জি রোডে সরু রাস্তার দু’ধারে ঘেঁষাঘেঁষি করে রয়েছে একাধিক বাড়ি। তার মধ্যেই পুকুরের পাশে একটি টিনের গুদাম ছিল। স্থানীয় বাসিন্দারা জানাচ্ছেন, গুদামে জেনারেটর, পাখা, বিদ্যুতের তার ও অন্যান্য বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি রাখা ছিল। এ দিন সকাল ১০টা নাগাদ হঠাৎই আগুন লাগে ওই গুদামটিতে। কিছু ক্ষণের মধ্যেই আগুন ছড়িয়ে পড়তে থাকে। ফলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। গুদামের উল্টো দিকেই বেশ কয়েকটি তিনতলা, চারতলা উঁচু বাড়ি রয়েছে। ওই বাড়িগুলির বাসিন্দারা জানান, আগুনের লেলিহান শিখা কখনও প্রায় আড়াই তলা উচ্চতা পর্যন্ত পৌঁছে যাচ্ছিল। 

রাহুল পিয়ারা নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা বলছেন, ‘‘আগুন লাগার পরেই তড়িঘড়ি আমরাই পাশের পুকুর থেকে জল নিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করি। এর পরে খবর পেয়ে দমকলের তিনটি ইঞ্জিন আসে।’’ প্রায় ঘণ্টাখানেকের চেষ্টায় গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। 

এ দিন ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেল, অগ্নিকাণ্ডে গুদামটি সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়েছে। একাধিক পাখা, একটি জেনারেটর, বিদ্যুতের তার পুড়ে গিয়েছে। তবে কী কারণে আগুন লেগেছে, তা খতিয়ে দেখছেন দমকলকর্মীরা। প্রাথমিক তদন্তে তাঁদের অনুমান, গুদামের পাশে যে বিদ্যুতের তার পোড়ানো হচ্ছিল, তা থেকেই আগুন লেগে থাকতে পারে।