অবশেষে যাত্রী-সুরক্ষা নিয়ে নড়ে বসতে চলেছেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ।

মাস কয়েক আগে ময়দান স্টেশনে অগ্নিকাণ্ডের পরে মেট্রোর কামরার ভিতরে সিসি ক্যামেরা বসানো-সহ একাধিক প্রস্তাব দিয়েছিলেন রেলওয়ে সেফটি কমিশনার। তার পরে প্রতিটি স্টেশনে মেট্রোকর্মীদের অগ্নিযুদ্ধের প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু হলেও কামরায় সিসি ক্যামেরা বসানোর কাজ খুব একটা গতি পায়নি। প্রয়োজনীয় বরাদ্দ পেতেই কয়েক মাস গড়িয়ে যায়। সম্প্রতি ওই কাজ শুরু হয়েছে বলে খবর।

এ বার সজল কাঞ্জিলালের মৃত্যুর ঘটনার পরে মেট্রো কর্তৃপক্ষ এক ধাপ এগিয়ে সব ক’টি এসি রেকের বাইরেও সিসি ক্যামেরা বসাতে চাইছেন। প্রতিটি এসি রেকের দু’পাশে চারটি করে মোট আটটি সিসি ক্যামেরা বসানোর প্রস্তাব রেল বোর্ডে পাঠানো হচ্ছে বলে মেট্রো সূত্রের খবর। ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর ক্ষেত্রে অবশ্য রেকের বাইরে সিসি ক্যামেরার সুবিধা আগেই ছিল। সেই ব্যবস্থার কথা মাথায় রেখেই উত্তর-দক্ষিণ মেট্রোয় ওই ব্যবস্থা চালু করতে চান কর্তৃপক্ষ।

মেট্রো সূত্রের খবর, চালক ও গার্ডের কামরার দু’পাশে সিসি ক্যামেরা থাকলে যাত্রীদের ওঠানামায় নজর রাখার ক্ষেত্রে সুবিধা হয়। পাশাপাশি, মাঝের কোচগুলিতেও নির্দিষ্ট ব্যবধানে সিসি ক্যামেরা থাকলে ওই নজরদারি আরও ভাল ভাবে চালানো যায়। একই সঙ্গে যাত্রী নিয়ে ছোটার সময়ে মেট্রোয় কোনও বিপত্তি ঘটলে সে সম্পর্কেও তথ্য পেতে সাহায্য করবে ওই ক্যামেরা।

এর আগে ১৩টি পুরনো এসি রেক এবং ‘ইন্টিগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরি’ থেকে আসা নতুন দু’টি এসি রেক মিলিয়ে মোট ১৫টি রেকের প্রতিটি কামরার ভিতরে দু’টি করে সিসি ক্যামেরা বসানোর প্রস্তাব দিয়েছিলেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ। এ বার সব ক’টি রেকের বাইরের দিকেও দু’পাশে সিসি ক্যামেরা বসানোর প্রস্তাব পাঠাচ্ছেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ। মেট্রো রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক ইন্দ্রাণী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘এসি কামরাগুলির ভিতরে ক্যামেরা বসানোর প্রস্তাব আগেই রেল বোর্ডের কাছে পাঠানো হয়েছিল। এ বার যাত্রীদের নিরাপত্তার স্বার্থে আমরা রেকের বাইরের দিকেও ক্যামেরা বসানোর কথা গুরুত্ব দিয়ে ভাবছি।’’