তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, বন্ধ থাকা একটি দোকানের সামনে তিনি আবর্জনা ফেলে রেখেছিলেন। জমা জলও পরিষ্কার করেননি। ফলে জায়গাটি হয়ে উঠেছিল ডেঙ্গির জীবাণুবাহী মশার আস্তানা। এই অভিযোগে এক বাড়িওয়ালাকে সোমবার এক লক্ষ টাকা জরিমানা করলেন কলকাতা পুর আদালতের সিনিয়র মিউনিসিপ্যাল ম্যাজিস্ট্রেট প্রদীপকুমার অধিকারী।

পুরসভা সূত্রের খবর, বৌবাজার থানার প্রিন্সেপ স্ট্রিটে একটি দোকান কিছু দিন ধরে বন্ধ। দোকানের সামনে ও পিছন থেকে আবর্জনা পরিষ্কার না করা এবং জমে থাকা জল না সরানোর কারণে বাড়িওয়ালা মহম্মদ ওয়াশিয়ার রহমানকে গত বছরের ৫ অক্টোবর নোটিস পাঠান কলকাতা পুরসভা কর্তৃপক্ষ। তাতে বলা হয়, আবর্জনা সাফ না করায় জায়গাটি ডেঙ্গির আঁতুড়ঘর হয়ে উঠেছে। এলাকার বাসিন্দারা ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হতে পারেন। অবিলম্বে আবর্জনা পরিষ্কার করুন বাড়ির মালিক। পুর কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, নোটিস পেয়েও আবর্জনা ও জল সরানো হয়নি। অক্টোবরের শেষে ফের নোটিস পাঠানো হয় ওয়াশিয়ারকে। তাতেও কাজ হয়নি। এর পরে গত জানুয়ারিতে বাড়িওয়ালার বিরুদ্ধে পুর আদালতে মামলা করে পুরসভা। এ দিন অভিযুক্তকে সর্বাধিক এক লক্ষ টাকা জরিমানা করা হলে তিনি সেই টাকা মিটিয়ে সাত দিনের কারাবাসের হাত থেকে বাঁচেন।