অবশেষে খাস শিল্পতালুকে নিজস্ব অফিস পেল নবদিগন্ত শিল্পনগরী। দীর্ঘ ১৩ বছর পরে। 

সল্টলেক পাঁচ নম্বর সেক্টরের প্রশাসনিক সংস্থা নবদিগন্ত শিল্পনগরী গঠিত হয়েছিল ২০০৬ সালে। কিন্তু এতদিন ওই সংস্থার কোনও নিজস্ব দফতর ছিল না।সল্টলেকে উন্নয়ন ভবনের একাংশ থেকেই নবদিগন্তের কাজ হত। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নবদিগন্ত কর্তৃপক্ষের নতুন প্রশাসনিক ভবনের দ্বারোদ্ঘাটন করলেন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু, সংস্থার চেয়ারম্যান দেবাশিস সেন প্রমুখ।

গত কয়েক বছর ধরেই স্বাস্থ্য ভবনের কাছে জিএন ব্লকে ২০ কাঠা জমির উপরে ওই প্রশাসনিক ভবন তৈরির কাজ চলছিল। নবদিগন্ত সূত্রের খবর, নতুন এই অফিস ভবন ১৭ তলা পর্যন্ত তৈরির অনুমতি রয়েছে। তবে আপাতত পাঁচটি তলের কাজ সম্পূর্ণ। ব্যয় হয়েছে প্রায় ২৫ কোটি টাকা। এর তিনটি তলে থাকবে নবদিগন্তের অফিস। বাকি একটি তলে থাকবে ব্যাঙ্ক সংক্রান্ত অফিস। 

নতুন প্রশাসনিক ভবনের পাশাপাশি সবুজায়নের লক্ষ্যে ওই শিল্পতালুকে তৈরি হয়েছে ছোট উদ্যানও। রাস্তার পাশে বসানো হয়েছে বিভিন্ন মূর্তি। শিল্পতালুকের কাজের প্রকৃতি এবং পরিবেশের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই ওই মূর্তি তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নবদিগন্তের এক কর্তা। 

এ দিন ওই পার্কেরও উদ্বোধন করেন পুরমন্ত্রী। জানান, শিল্পনগরীকে আন্তর্জাতিক মানের গড়ে তুলতে এবং পরিবেশের কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হচ্ছে। তাই শিল্পতালুকের মধ্যেই নিজস্ব অফিসের প্রয়োজন ছিল।