কঠিন অঙ্ক কষে অপরাধী ধরা গোয়েন্দা গল্পে শোনা যায়। এ বার তেমনই এক অঙ্ক কষে বেপরোয়া চালককে পাকড়াও করল নিউ আলিপুর থানার পুলিশ!

লালবাজারের খবর, গত ৪ মার্চ রাত সওয়া ১১টা নাগাদ নিউ আলিপুরের সাহাপুর কলোনিতে মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের বাড়ির অদূরে একটি গাড়ি বেপরোয়া গতিতে ছুটছিল। কয়েক জন পথচারী কোনও মতে বাঁচলেও শেষমেশ আর একটি চার চাকার গাড়িকে ধাক্কা মেরে পালায় সেটি। 

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, সিসি ক্যামেরার ফুটেজে কালো রঙের গাড়িটিকে দেখা গেলেও তার নম্বর প্লেট স্পষ্ট ভাবে আসেনি। কয়েক জন প্রত্যক্ষদর্শীকে জিজ্ঞাসা করে শেষমেশ চারটি আলাদা সংখ্যা (৩, ৪, ৯, ১) পান তাঁরা। নম্বর প্লেটে ওই চারটি সংখ্যা আছে, এমন ২২৭টি গাড়ির খোঁজ পাওয়া যায়। যার সবগুলিই ছিল কালো রঙের। আবার ২২৭টি গাড়ির মধ্যে ৪৭টি ছিল দক্ষিণ কলকাতার।

পুলিশ সূত্রের দাবি, ওই ৪৭টি গাড়ির প্রত্যেকটি ধরে ধরে পরীক্ষা করা হচ্ছিল। কিন্তু কোনও ভাবেই প্রমাণ মিলছিল না। সেই সময়ে একটি গাড়ির মালিক জানান, তিনি তাঁর গাড়িটি রাজু সিংহ নামে পর্ণশ্রীর এক যুবককে বিক্রি করেছেন।

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

তদন্তকারীদের কথায়, রাজুর বাড়ি গিয়ে তাঁর বাবা-মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তাঁরা জানান, রাজু মাসখানেক ধরে ভিন্‌ রাজ্যে রয়েছেন। কিন্তু তাঁদের বক্তব্য শুনে নিউ আলিপুর থানার অফিসারদের সন্দেহ হয়। তাঁরা রাজুর ফোন নম্বর জোগাড় করে তার মোবাইল টাওয়ারের অবস্থান খতিয়ে দেখা শুরু করেন। 

সেই বিরাট তালিকা থেকে হিসেব কষে দেখা যায়, জেমস লং সরণির একটি গ্যারাজের আশপাশে মাঝেমধ্যেই যান ওই যুবক। বুধবার রাতে সেই গ্যারাজে হানা দিয়ে উদ্ধার করা হয় গাড়িটি। সেটির গায়ে দুর্ঘটনার চিহ্ন মিলেছে। পুলিশের দাবি, রাজুর চালক তারকেশ্বর সিংহ গাড়িটি চালাচ্ছিলেন। তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে ওই গাড়িতে রাজু ছিলেন কি না, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে তারা।