সরকারি এসি বাসের দু’টি বিশেষ রুটে এক দিনের জন্য সর্বাগ্রে বসার সুযোগ পাবেন মহিলারা! মহিলারা বাসে ওঠামাত্র তাঁদের হলুদ গোলাপ দিয়ে অভ্যর্থনা জানাবেন পুরুষ সহযাত্রীরা। 

আগামী কাল, বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক নারী দিবসে এ ভাবেই নারীসত্তাকে কুর্নিশ জানাতে চান এসি-৪৩ এবং এসি-৯বি স রুটের নিত্যযাত্রীরা।

ওই রুটের যাত্রীদের অধিকাংশই সেক্টর-৫ এবং নিউ টাউনের বিভিন্ন তথ্যপ্রযুক্তি এবং বাণিজ্যিক সংস্থায় কর্মরত। ২টি রুটের ৩টি বাস মিলিয়ে প্রায় ৩০০ নিত্যযাত্রী রয়েছেন। যাত্রীদের বড় অংশই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত। বাস কখন ছাড়ল, কোথায় পৌঁছল তা যাত্রীরাই হোয়াটসঅ্যাপে সহযাত্রীদের জানিয়ে দেন। বছরভর বিপদে-আপদে যাত্রীরা একে অপরের পাশে থাকেন। বাসচালক এবং কন্ডাক্টরেরাও সামিল ওই গ্রুপে। বাসে ফেলে যাওয়া ছাতা, মোবাইল বা ব্যাগের হদিস মিলে যায় হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে। এক যাত্রী জানান, আত্মীয়-পরিজনের অসুস্থতায় বিরল গ্রুপের রক্তের হদিস দিয়েও মুশকিল আসান করেছে ওই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ। পয়লা বৈশাখ বা বিজয়া সম্মিলনীও নিজেদের উদ্যোগে বাসে বসেই পালন করেন নিত্যযাত্রীরা।

পরিবহণ দফতর সূত্রে খবর, সকাল ৮-১৫ মিনিট এবং ৯-১০ মিনিট নাগাদ এসি-৪৩ রুটে দু’টি সরকারি বাস গল্ফগ্রিন থেকে ছেড়ে প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড, ই এম বাইপাস, সেক্টর-৫ হয়ে বিমানবন্দর যায়। আবার বিকেল সাড়ে ৫টা এবং সাড়ে ৬টা নাগাদ বিমান বন্দর থেকে ফিরে আসে। এসি-৯ বি রুটের বাসটি সকাল ৯-১০ মিনিটে গল্ফগ্রিন থেকে প্রায় একই পথে ইকোস্পেস পর্যন্ত যায়। বিকেলে ওই বাসটি চলে না। 

ওই রুটের নিত্যযাত্রী দেবদত্তা মুখোপাধ্যায় একটি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার কর্মী। তিনি বলেন, “বাসযাত্রীদের সঙ্গে প্রায় আত্মীয়তাই তৈরি হয়ে গিয়েছে। এমন উদ্যোগ ভালই লাগবে।”