• সুনন্দ ঘোষ
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দ্বিতীয় রানওয়েতে দেরি কমাতে নয়া পথ

Netaji Subhas Chandra Bose International Airport
কলকাতা বিমানবন্দর। —ফাইল চিত্র।

‘অসুখ’ খুঁজে পাওয়া গিয়েছে। কিন্তু, দেরি হচ্ছে ‘চিকিৎসা’য়।

কলকাতা বিমানবন্দরে যখনই দ্বিতীয় রানওয়ে দিয়ে বিমান ওঠানামা করছে, তখনই আকাশে বেড়ে যাচ্ছে বিমানের ভিড়। যার জেরে বার দুয়েক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকেও শহরের আকাশে এসে চক্কর খেতে হয়েছে! সেই ঘটনা নিয়ে জলঘোলাও হয়েছে বিস্তর।

বিমানবন্দরের কর্তারা জানিয়েছেন, একটি বিমান নামার পরে সেটি প্রধান রানওয়ে খালি করে বেরিয়ে গেলেই পরের বিমান সেখানে নেমে আসতে পারে। পরপর দু’টি বিমানের অবতরণের মাঝখানে চটজলদি অন্য একটি বিমানকে কলকাতা থেকে টেক-অফ করারও অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। এ ভাবে ঘণ্টায় প্রায় ৩৫টি বিমান ওঠানামা করছে প্রধান রানওয়ে থেকে। সেই সময়ে শহরের আকাশে পৌঁছনোর পরে বেশি ক্ষণ অপেক্ষাও করতে হচ্ছে না কোনও বিমানকে।

কিন্তু দ্বিতীয় রানওয়ের ক্ষেত্রে সমস্যা সমান্তরাল ‘আলফা’ ট্যাক্সি বে। দ্বিতীয় রানওয়েতে নামার পরে বিমানকে সেখান থেকে বেরিয়ে ওই আলফায় উঠতে হয়। কিছুটা গড়ানোর পরে সেই আলফা থেকে বেরিয়ে গেলে তবে পরের বিমান দ্বিতীয় রানওয়েতে নামতে পারে। কারণ হিসেবে বিমানবন্দরের কর্তারা জানিয়েছেন, দ্বিতীয় রানওয়ে দিয়ে যখন বিমান ওঠানামা করে, তখন আলফাকেও খালি রাখতে হয়। আন্তর্জাতিক বিমান পরিবহণের নিয়ম অনুযায়ী, রানওয়ে থেকে ১৮২.৫ মিটারের মধ্যে কোনও চলমান বিমান থাকতে পারবে না। কলকাতায় দ্বিতীয় রানওয়ে থেকে আলফার দূরত্ব ১১৬ মিটার। ফলে দ্বিতীয় রানওয়ে খালি করার পরেও বিমান যত ক্ষণ আলফায় থাকবে, তত ক্ষণ দ্বিতীয় রানওয়ে দিয়ে অন্য বিমান ওঠানামা করতে পারবে না।

দ্বিতীয় রানওয়ে থেকে বেরিয়ে আলফায় ঢুকে সেখান থেকে বেরোতে বেরোতে বিমানের অনেকটাই সময় লেগে যাচ্ছে। আবার নেমে আসা বিমান আলফা থেকে বেরোনোর পরে টেক-অফ করার বিমানকে আলফায় ঢোকাতে হচ্ছে। তারও গড়িয়ে গড়িয়ে দ্বিতীয় রানওয়েতে পৌঁছতে সময় লেগে যাচ্ছে। ফলে, আকাশে বাধ্য হয়ে অপেক্ষা করতে হচ্ছে অন্য বিমানকে।

এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোল (এটিসি) অফিসারদের সংগঠন এটিসি গিল্ডের সম্পাদক কৈলাসপতি মণ্ডলের কথায়, ‘‘বহু দিন ধরেই এই সমস্যার কথা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে জানানো হচ্ছে। একটা সমাধানসূত্রও বেরিয়েছে। কিন্তু জানি না, কাজ কতটা এগিয়েছে।’’

কী সেই সমাধানসূত্র?

বিমানবন্দর সূত্রের খবর, আলফারও পরে টার্মিনালের দিকে সমান্তরাল যে আর একটি ট্যাক্সি বে রয়েছে, তাকে ‘ফক্সট্রট’ বলা হয়। সেখান দিয়ে বিমান যাতায়াত করলে দ্বিতীয় রানওয়েতে নামা-ওঠায় কোনও সমস্যা হবে না। পরিকল্পনা অনুযায়ী, সেই ফক্সট্রট-কে উত্তর দিকে একেবারে দ্বিতীয় রানওয়ের প্রান্তে নিয়ে গিয়ে যোগ করা হবে। আর সেই বর্ধিত ফক্সট্রট এবং আলফার মাঝখানেও কয়েকটি ট্যাক্সি বে তৈরি করা হবে। তা হলে দ্বিতীয় রানওয়েতে নামার পরে আলফা হয়ে তাড়াতাড়ি বিমান ফক্সট্রটে পৌঁছে যাবে। আর ফক্সট্রট দিয়ে একেবারে দ্বিতীয় রানওয়ের কাছে গিয়ে অপেক্ষা করতে পারবে টেক-অফ করতে চাওয়া বিমান।

যদিও ফক্সট্রটের সেই সম্প্রসারণের কাজ এখনও শুরু হয়নি। বিমানবন্দরের এক কর্তা শুক্রবার বলেন, ‘‘বিটুমিন দিয়ে তৈরি এই ট্যাক্সি বে-টি কংক্রিটের করা হচ্ছে। সেটা শেষ হলেই সম্প্রসারণের কাজ শুরু হবে।’’

তত দিন অবশ্য দুর্ভোগ চলবে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন