শীতের সকালে মাথায় হাতুড়ি মেরে খুনের চেষ্টা হয়েছিল এক ব্যক্তিকে। সেই ঘটনার পাঁচ মাস পরে অভিযুক্তকে পাকড়াও করল কলকাতা পুলিশ। লালবাজার জানিয়েছে, ধৃতের নাম তপন তরফদার। তার বাড়ি নদিয়ার গেদে উত্তরপাড়ায়। মঙ্গলবার গভীর রাতে সেখান থেকেই তাকে পাকড়াও করেন জোড়াসাঁকো থানার অফিসারেরা। 

সরকারি কৌঁসুলি দীপনারায়ণ পাকড়াশি জানান, বুধবার ব্যাঙ্কশাল আদালতে হাজির করানো হলে অতিরিক্ত মুখ্য মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মনোদীপ দাশগুপ্ত ধৃতকে ২৮ জুন পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন। পুলিশ সূত্রের খবর, ২২ জানুয়ারি সকাল সাড়ে আটটা নাগাদ জোড়াসাঁকো থানা এলাকার একটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের ভিতরে এক ব্যক্তিকে মাথায় হাতুড়ি মারা হয়। তাতে তিনি গুরুতর আঘাত পান। আহতের ভাইয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রথমে অজ্ঞাতপরিচয়ের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছিল। পরে আহতের জবানবন্দি থেকে তপনের নাম জানতে পারে পুলিশ। এ-ও জানতে পারে, তপন ওই ব্যক্তিকে মারধর করে প্রায় ৪ লক্ষ ২০ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়েছে।

লালবাজারের একটি সূত্রের দাবি, তপন সে সময়ে জ়াকারিয়া স্ট্রিটের একটি হোটেলে উঠেছিল। সেখান থেকে তপনের সচিত্র পরিচয়পত্রের প্রতিলিপি এবং ফোন নম্বর জোগাড় করে তার বাড়ির হদিস মেলে। তবে সে তখন বাড়িতে ছিল না। সম্প্রতি বাড়ি ফিরতেই মঙ্গলবার রাতে পুলিশ সেখানে হানা দেয়। তদন্তকারীদের দাবি, তপন এবং আহত ব্যক্তি দু’জনেই বিদেশি মুদ্রা ভাঙানোর ব্যবসা সূত্রে পূর্ব পরিচিত। 

গত ২২ জানুয়ারি সকালে বিদেশি মুদ্রা ভাঙানোর জন্য আহত ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করার কথা ছিল তপনের। সকালে ফোন করে তাঁকে ওই প্রতিষ্ঠানের ভিতরে তিনতলার একটি ঘরে যেতে বলে তপন। আহত ব্যক্তির দাবি, তিনি ওই ঘরে গেলে দেখেন, তপন এবং অন্য এক অপরিচিত ব্যক্তি সেখানে রয়েছে। কথাবার্তার ফাঁকেই তাঁর মাথায় হাতুড়ি মেরে পালিয়ে যায় তপন ও তার সঙ্গী। 

পুলিশের দাবি, তপনকে জেরা করে কিছু তথ্য মিলেছে। তবে হেফাজতে রেখে বিস্তারিত ঘটনা জানার চেষ্টা করবেন তদন্তকারীরা।