মাঝরাতে দুই সহকর্মীর মধ্যে হঠাৎই বচসা শুরু।  কিছু ক্ষণ পর লাঠির আঘাতে এক জন মেঝেতে লুটিয়ে পড়লেন। একটি মৃত্যুর কিনারা করতে গিয়ে সিসিটিভি ফুটেজে এমনই তথ্য পেল পুলিশ।

রবিবার সকালে আনন্দপুরের মার্টিনপাড়ায় এক যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।  মৃতের নাম মহম্মদ সারফুদ্দিন (২৬)। তাঁর বাড়ি উত্তরপ্রদেশে। পুলিশ সূত্রে খবর, মার্টিনপাড়ায় একটি প্লাস্টিক কারখানায় কাজ করতেন মহম্মদ সারফুদ্দিন ও শাহরুখ নামে দুই যুবক। তাঁরা দু’জনেই রাতে ওই কারখানায় ঘুমোতেন।

পুলিশ জানিয়েছে, পাখার হাওয়া নিয়ে শনিবার রাতে দু’জনের মধ্যে বচসা শুরু হয়। তর্কাতর্কির মধ্যে হঠাৎ-ই সারফুদ্দিনের মাথায় লাঠি দিয়ে জোরে আঘাত করেন শাহরুখ। লাঠির আঘাতে মাটিয়ে লুটিয়ে পড়ে রাতেই মৃত্যু হয় সারফুদ্দিনের। ঘটনার পর থেকে পলাতক শাহরুখ। শাহরুখের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।