• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

প্রস্তাব খারিজ, অবস্থানের মেয়াদ বাড়ল মেডিক্যালে

Protest
করোনা আক্রান্ত ছাড়াও অন্য রোগীদের পরিষেবা দেওয়ার দাবিতে অবস্থান।—ফাইল চিত্র।

কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে নন-কোভিড পরিষেবার ভবিষ্যৎ সম্পর্কে স্বাস্থ্য দফতরের মনোভাব জানার পরে ২৪ ঘণ্টার অবস্থান-বিক্ষোভের সিদ্ধান্ত নিলেন জুনিয়র চিকিৎসকেরা।

বুধবার জুনিয়র চিকিৎসকেরা জানিয়েছিলেন, কোভিড হাসপাতালে নন-করোনা রোগীদের চিকিৎসার দাবিতে সকাল ১০-৬টা তাঁদের অবস্থান চলবে। কিন্তু স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা দেবাশিস ভট্টাচার্যের সঙ্গে বৃহস্পতিবার কথা বলে তাঁরা জানান, নন-করোনা রোগী পরিষেবা সংক্রান্ত তাঁদের প্রস্তাব খারিজ হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন অধিকর্তা। পাশাপাশি এক নতুন নির্দেশিকায় স্বাস্থ্য ভবন জানিয়েছে, কলকাতা মেডিক্যাল এবং সাগর দত্ত হাসপাতালের স্নাতকোত্তর পড়ুয়ারা (পিজিটি) চাইলে অন্য মেডিক্যাল কলেজে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন। সেই নির্দেশিকা ঘিরেও সুনির্দিষ্ট ব্যাখ্যা না-পাওয়ায় অবস্থানের মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়।

কী ছিল জুনিয়র ডাক্তারদের প্রস্তাব? সম্প্রতি কলেজ কাউন্সিলের বৈঠক থেকে নন-কোভিড সংক্রান্ত একগুচ্ছ প্রস্তাব স্বাস্থ্য ভবনে পাঠিয়েছিলেন মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ। এর পরে জুনিয়র চিকিৎসকেরা স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের সঙ্গে দেখা করে প্রস্তাব দেন, মেডিক্যালের সুপার স্পেশ্যালিটি (এসএসবি) এবং গ্রিন বিল্ডিংয়ে ভর্তি থাকা বেশির ভাগ রোগী উপসর্গহীন বা তাঁদের মৃদু উপসর্গ রয়েছে। পরীক্ষার ভিত্তিতে তাঁদের মেয়ো রোডের হাসপাতালে ভর্তি নেওয়া যেতে পারে। তাতে এক দিকে যেমন মেডিক্যাল কলেজের ভিতরে দু’টি ব্লকের পাঁচশো শয্যায় গুরুতর কোভিড রোগীরা জায়গা পাবেন, তেমনই বাকি ভবনগুলি নন-কোভিড পরিষেবায় ব্যবহার কথা যাবে। জুনিয়র ডাক্তারদের বক্তব্য, তাঁদের সেই যুক্তি গ্রহণ করা হয়নি বলে এ দিন জানান স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা।

গোটা ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে নবান্ন সূত্রের বক্তব্য, ইন্টার্ন, পিজিটি-রা চাইলে অন্য মেডিক্যাল কলেজে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন। কিন্তু মেডিক্যালের ছাত্রছাত্রীরা সেখানেই ক্লাস করতে পারবেন। পাশাপাশি, কলকাতা মেডিক্যালের দু’টি অ্যানেক্স হাসপাতালের একটিতে চিকিৎসা পাবেন নন-করোনা রোগীরা। কিন্তু ভবিষ্যতের কথা ভেবে মেডিক্যালে নন-করোনা রোগীদের চিকিৎসায় সায় নেই নবান্নের। জুনিয়র চিকিৎসকেরা জানান, এ দিন কলেজ কাউন্সিলের বৈঠকে নবান্নের এই মনোভাবের কথাও তাঁদের বলেন দেবাশিসবাবু।

আরও পড়ুনরোজগার হারাচ্ছেন শ্রম সংগঠকেরা

যা শুনে স্নাতকোত্তর পড়ুয়াদের অন্য মেডিক্যাল কলেজে প্রশিক্ষণ কী ভাবে হবে, জানতে চান জুনিয়র ডাক্তারেরা। কিন্তু তাঁদের দাবি, তা নিয়েও স্পষ্ট উত্তর মেলেনি। অবস্থানকারীদের তরফে অর্ণব মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘মেধার ভিত্তিতে মেডিক্যাল কলেজকে বেছে নিয়েছিলাম। সেই অধিকার স্বাস্থ্য দফতর কেড়ে নিতে পারে না। মেডিক্যাল কলেজের বিপুল সংখ্যক নন-করোনা রোগী কোথায় যাবেন, তারও উত্তর নেই।’’

নবান্ন সূত্রের খবর, মেডিক্যাল কলেজ ঘিরে রাজ্য সরকার কী ভাবছে তা শীঘ্রই অবস্থানকারীদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হতে পারে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন