কেউ অভিযোগ করলেন মেট্রোর সময়ানুবর্তিতা এবং যাত্রী-স্বাচ্ছন্দ্য নিয়ে। কেউ আবার ব্যস্ত সময়ে মাত্রাতিরিক্ত ভিড় নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন। যাত্রী পরিষেবার হাল হকিকত খতিয়ে দেখতে সোমবার মেট্রোয় উঠে এমনই প্রতিক্রিয়া পেলেন রাজ্যের ক্রেতা সুরক্ষা দফতরের মন্ত্রী সাধন পাণ্ডে।

পরিষেবার হাল ফেরাতে অবশ্য এ দিন মেট্রো কর্তৃপক্ষকে দ্রুত তৎপর হতে বলেছেন মন্ত্রী। সাধনবাবুর কথায়, ‘‘মেট্রো পরিষেবা দেয়। সেখানে খামতি নিয়ে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’

এ দিন সকাল ৯টা নাগাদ দফতরের কর্মী-আধিকারিকদের সঙ্গে নিয়ে গিরিশ পার্ক স্টেশনে পৌঁছন সাধনবাবু। প্ল্যাটফর্মে নামার মুখে এসক্যালেটর না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। পরে স্টেশন সুপারের ঘরে গিয়ে মেট্রোর অন্য পদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গেও কথা বলেন। যাত্রী পরিষেবার হাল খতিয়ে দেখতে সাড়ে ৯টা নাগাদ একটি নন-এসি মেট্রোয় চড়ে গিরিশ পার্ক থেকে পার্ক স্ট্রিট পর্যন্ত যান। সে সময়ে একাধিক যাত্রী মেট্রোর সময়ানুবর্তিতা নিয়ে তাঁর কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। প্রতিমা বড়ুয়া এবং বীণা সরকার নামে দুই যাত্রী অভিযোগ করেন, ‘‘প্ল্যাটফর্মে কোনও ঘোষণা ছাড়াই ট্রেনের সময় বদলে যায়। ট্রেন কিছুতেই নির্দিষ্ট সময়ে আসে না।’’ নন-এসি রেকে গলদঘর্ম হয়ে যাতায়াত করা নিয়েও মন্ত্রীর কাছে অনুযোগ করেন কয়েক জন যাত্রী।

তবে অফিসের ব্যস্ত সময়ে লোকলস্কর নিয়ে এ ভাবে ভিড়ে ঠাসা মেট্রোয় উঠে যাত্রীদের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া নিয়েও আড়ালে-আবডালে ক্ষোভ উগরে দেয় যাত্রীদের একাংশ। কিছু পরে পার্ক স্ট্রিট স্টেশনে নেমে মন্ত্রী অভিযোগ করেন, ‘‘দেশের সব মেট্রোয় এসি রেক চললেও কলকাতায় নন-এসি রেক চলছে। প্রযুক্তিগত ভাবে এই রেকের অনেক সমস্যা। দরজায় সেন্সর কাজ করে না। অবিলম্বে এই রেক বন্ধ করে এসি রেক চালানোর ব্যবস্থা করতে হবে। স্টেশনে শৌচাগারের সুবিধা থাকাও জরুরি।’’

মেট্রো স্টেশন থেকে বেরনোর মুখে বিশ্বজিৎ সামন্ত নামে এক যাত্রী মেট্রো কর্তাদের সামনেই ক্ষোভ উগরে দেন। মন্ত্রীকে ওই যাত্রী বলেন, ‘‘অফিসের ব্যস্ত সময়ে এক বার মেট্রোয় উঠে দেখুন, কী অবস্থা হয়। পা রাখার জায়গা পাই না।’’ এমন অভিযোগ শুনে মন্ত্রী মেট্রোর আধিকারিকদের বলেন, ‘‘যাত্রী পরিষেবা নিয়ে অভিযোগ পেলে মেট্রোকে রেয়াত করা হবে না। কারণ মেট্রো পরিষেবা দেয়।’’ এর পরে ১১টা নাগাদ নিজের দফতরের দিকে রওনা হন সাধনবাবু। 

এ দিন মেট্রোর ডেপুটি চিফ অপারেশন ম্যানেজার শুভাশিস ভট্টাচার্য জানান, মন্ত্রী এবং যাত্রীদের দাবিদাওয়া নথিভুক্ত করেছেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে ওই সব সমস্যার কথা জানানো হবে।