হাওড়ার প্রশাসনিক বৈঠকে যাওয়ার আগে সোমবার ফোরশোর রোড লাগোয়া একটি বস্তিতে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে গিয়ে বাসিন্দাদের কাছ থেকে তাঁকে শুনতে হয়েছিল, অনেকেই রেশন কার্ড পাননি। সেই অভিযোগের পুনরাবৃত্তি রুখতে এ বার হাওড়া-সহ রাজ্যের বিভিন্ন বস্তিতে পৌঁছবে খাদ্য দফতরের দল। তারা সে সব জায়গায় গিয়ে রেশন কার্ডের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করে প্রয়োজন অনুযায়ী পদক্ষেপ করবে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। 

হাওড়ার বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার দফতরের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন খাদ্যমন্ত্রী। আবেদন না করার ফলেই হাওড়ার ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের দু’নম্বর রাউন্ড ট্যাঙ্ক লেনের হরিজন বস্তিতে রেশন কার্ড পাননি অনেকে। এমনটাই মত খাদ্য দফতরের একাংশের। 

দফতর সূত্রের খবর, নতুন রেশন কার্ড ২৭টি প্রিন্ট হয়ে এসেছে। সেগুলি কয়েক দিনের মধ্যেই মানুষের হাতে পৌঁছে যাবে। ৪৭টি কার্ড প্রিন্ট হতে ছাপাখানায় গিয়েছে। ওই এলাকায় রেশন কার্ডের জন্য ৭৯ জন বাসিন্দাকে আবেদন করতে হবে। তার পরেই তাঁরা রেশন কার্ড পাবেন। 

হাওড়ায় ১ লক্ষ ৮২ হাজার কার্ড প্রিন্ট হয়ে এসেছে। তার মধ্যে ১২৯৩ জন গ্রাহককে খুঁজে পাওয়া যায়নি। বাকি কার্ডগুলি বাড়ি বাড়ি পৌঁছনোর জন্য ব্লক স্তরে পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু করেছে জেলা প্রশাসন।