• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

হিন্দু হস্টেল নিয়ে এ বার ঘেরাও উপাচার্য

Student gheraoed VC for Hindu hostel issue
হিন্দু হস্টেলের দাবি নিয়ে পোস্টার প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের দেওয়ালে। সোমবার। নিজস্ব চিত্র

হিন্দু হস্টেলের নানা দাবিদাওয়া নিয়ে এ বার বিক্ষোভকারী পড়ুয়ারা ঘেরাও করলেন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়াকে। তিনি ছাড়াও ঘেরাও হয়ে থাকলেন প্রেসিডেন্সির ডিন অব স্টুডেন্টস ও বিভিন্ন বিভাগের প্রধানেরা। সোমবার রাত পর্যন্ত চলে এই ঘেরাও।

বিক্ষোভরত ছাত্রছাত্রীরা রবিবারই জানিয়ে দিয়েছিলেন, হিন্দু হস্টেলের দাবি নিয়ে তাঁদের আন্দোলন সোমবার থেকে তীব্রতর হবে। সেই মতো এ দিন সকাল থেকে প্রেসিডেন্সি চত্বরে বিক্ষোভ শুরু হয়। উপাচার্য এলে তাঁকে তাঁর অফিসে ঘেরাও করে স্লোগান দিতে থাকেন পড়ুয়ারা। এ দিনও তাঁদের প্রধান দাবি ছিল, হস্টেলের তিন, চার ও পাঁচ নম্বর ওয়ার্ড অবিলম্বে সংস্কার করে খুলে দিতে হবে।

পড়ুয়াদের অভিযোগ, হস্টেল নিয়ে তাঁদের আগের দাবি তো ছিলই। সেই সঙ্গে হস্টেলের মেসে রান্নার পুরনো কর্মীদের প্রতি কর্তৃপক্ষ যে অবিচার করছেন, তার বিরুদ্ধেও সরব হয়েছেন তাঁরা। পড়ুয়াদের অভিযোগ, হঠাৎ করে ওই কর্মীদের বদলি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কর্তৃপক্ষ। যার জেরে গত তিন দিন ধরে রান্না বন্ধ হস্টেলে।

বিক্ষোভরত পড়ুয়ারা প্রেসিডেন্সি কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে লিঙ্গ বৈষম্যেরও অভিযোগ এনেছেন। তাঁদের অভিযোগ, সরস্বতী পুজোর দিন বিক্ষোভ দেখানোর সময়ে ছুটি থাকার অজুহাতে প্রেসিডেন্সি চত্বরে ছাত্রীদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

বিক্ষোভ প্রসঙ্গে উপাচার্য অনুরাধাদেবী বলেন, ‘‘ছাত্রছত্রীদের আগেই যা বলার বলেছি। আর কিছু বলার নেই।’’ আর শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কথায়, ‘‘দাবি আদায়ের জন্য জোর করা ঠিক নয়। দাবি থাকলে ছাত্রছাত্রীরা আমাদের লিখিত ভাবে জানাক। প্রয়োজনে হস্তক্ষেপ করব। কারও অসুবিধা হোক আমরা চাই না।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন