বৌবাজারে বিপর্যয়ের প্রেক্ষিতে নড়েচড়ে বসল কলকাতা পুর প্রশাসন। এস এন ব্যানার্জি রোডে নিজেদের কেন্দ্রীয় পুর ভবনের হাল কেমন, তা খতিয়ে দেখার জন্য তড়িঘড়ি বুধবার বৈঠকে বসেছিলেন পুর কর্তৃপক্ষ। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বিশেষজ্ঞ দলের সঙ্গে পুর ভবনের কাঠামোগত অবস্থা নিয়ে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা হয় পুর কর্তাদের।

বৌবাজারে মুহুর্মুহু বাড়ি ধসে পড়ায় এমনিতেই চিন্তায় রয়েছে পুর প্রশাসন। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় পুর ভবনের হাল কী, সে সম্পর্কে নিশ্চিত হতেই এ দিনের বৈঠক হয়। পুরসভা সূত্রের খবর, অনেক দিন ধরেই বৈঠকটি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিভিন্ন কারণে সেটি পিছিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে বিষয়টি আর ফেলে রাখতে চাননি কর্তৃপক্ষ। কেন্দ্রীয় পুর ভবনে কত দ্রুত সারাইয়ের কাজ শুরু করা যায়, সে বিষয়টি-সহ কাঠামো সংক্রান্ত সমস্ত বিষয় নিয়েই এ দিন আলোচনা হয়। কেন্দ্রীয় পুর ভবনের বাড়িটি অনেক পুরনো। ফলে পুরনো বাড়িতে কাঠামো সংক্রান্ত যে সমস্ত সমস্যা থাকে, যেমন দেওয়ালে ফাটল ধরা, ভিত দুর্বল হয়ে যাওয়ার মতো বিভিন্ন সমস্যা কেন্দ্রীয় পুর ভবনেও রয়েছে বলে অনুমান বিশেষজ্ঞদের। তবে বাড়িটির হাল ঠিক কতটা খারাপ, তা জানার জন্য বিশেষজ্ঞ দলের তরফে প্রথমে সরেজমিন পরীক্ষা করে দেখা হবে বলে এ দিনের বৈঠকে প্রাথমিক ভাবে ঠিক হয়েছে। এক পুরকর্তার কথায়, ‘‘কিছু দিন আগেই পুর ভবনে ফাটল দেখা গিয়েছিল। ফলে সেই বিষয়টির উপরেও জোর দেওয়া হয়েছে।’’

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ দল অবশ্য মনে করছে, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কেন্দ্রীয় পুর ভবনের সংস্কারের কাজ শুরু করা উচিত। কারণ, এ সমস্ত ক্ষেত্রে দেখা যায়, যত দিন যায়, ততই পরিস্থিতি খারাপ হয়। বিশেষজ্ঞ দলের এক কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারের কথায়, ‘‘পরীক্ষা করে আগে দেখতে হবে কাঠামোর বর্তমান অবস্থা কেমন। একমাত্র তা জানার পরেই সংস্কারের কাজ শুরু করা যাবে। কিন্তু সেই কাজ দ্রুত করতে হবে বলেই আমাদের মত।’’