• অনুপ চট্টোপাধ্যায়
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পুরকর্মীদের কাছে পাখির চোখ মহার্ঘ ভাতা

KMC

বুথ ফেরত সমীক্ষা কি মিলবে? না কি আজ, বৃহস্পতিবার সেই সমীক্ষার ফলাফল তলিয়ে যাবে গণনার ফলাফলের অতলে? বুধবার সারা দিন সেই চর্চাই চলল কলকাতা পুরসভায়। তবে ফলাফল নিয়ে মেয়র পারিষদ কিংবা কাউন্সিলরদের সঙ্গে সাধারণ কর্মচারীদের সুরের ফারাকও চোখে পড়ল ভোট গণনার আগের দিন। অনেককেই দেখা গেল এগজিট পোলের ফলাফল মিললে আগামী দিনে তাঁদের মহার্ঘ ভাতা বৃদ্ধির কোনও সম্ভাবনা তৈরি হবে কি না, তা নিয়ে আলোচনা করতে।

১৯ মে শেষ দফার ভোটের পরে বুথ ফেরত সমীক্ষার ফলাফল প্রকাশ্যে আসতেই একটু অন্য রকম হাওয়া উঠেছে সব জায়গায়। তার রেশ যেন ছুঁয়ে গিয়েছে এস এন ব্যানার্জি রোডের লালবাড়িকেও। এগজিট পোলের ফলাফল নিয়ে অনেকেই অনেক ভাবে উত্তেজিত। তাঁদের মধ্যে একটি অংশ সেখানকার সরকারি কর্মীরা। এক পদস্থ কর্মীর কথায়, ‘‘বুথফেরত সমীক্ষার ফল সত্যি হলে আগামী বিধানসভা নির্বাচনের আগে হয়তো আমাদের মহার্ঘ ভাতা বাড়তে পারে। এখন যা পাই তা যেন বুঝতেই পারি না।’’ ফলে সেই মহার্ঘ ভাতার টানেই অনেককে দেখা গেল এগজিট পোলের ফলাফল নিয়ে উৎসাহ দেখাতে।

বুথ ফেরত সমীক্ষায় ১৬টি আসনে এ রাজ্যে বিজেপিকে সম্ভাব্য জয়ী হিসেবে দেখানো হয়েছে। তাতে সরকারি কর্মচারীদের আদৌ সুবিধা হবে কি না,  এ দিন তাই নিয়ে কলকাতা পুরসভায় অনেককেই আলোচনা করতে শোনা গিয়েছে। তবে অনেকে আবার সেই সমীক্ষাকে গুরুত্ব দিতেই রাজি হননি। কেউ কেউ তো বলেই দিলেন, ‘‘ও সব সমীক্ষা ভুল। একটা লোকসভা কেন্দ্রে ১৭ লক্ষ ভোটার। ভোটারদের মন জানা অত সোজা নয়। পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল যা ছিল, তা-ই থাকবে।’’

ফলাফল যে দিকেই যাক, বুধবার থেকেই কিন্তু পুরসভার সব মহলের চোখ টিভির দিকেই স্থির হয়ে গিয়েছে। এবং আজ, বৃহস্পতিবারও ছবিটা একই রকমই থাকবে বলেই মনে করা যায়। ইঞ্জিনিয়ারিং দফতরে ঢুকে কানে এল এক কর্মী অন্য জনকে বলছেন, ‘‘আমি সকাল সকাল অফিসে এসে কোনও মেয়র পারিষদের ঘরে গিয়ে টিভির সামনে বসে পড়ব।’’ সব দফতরের কর্মী-অফিসারদের মধ্যে একই আলোচনা। তৃণমূল পরিচালিত পুরসভার কর্মী ইউনিয়নের নেতা শ্রীমন্ত ঘোষাল জানান, পুরসভার কাউন্সিলর্স ক্লাবের টিভিতে বৃহস্পতিবার গণনা সংক্রান্ত খবর দেখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

তবে কর্তাব্যক্তিরা যে আজ পুরসভামুখো হচ্ছেন না সেই আভাসও মিলেছে। মেয়র ফিরহাদ হাকিম জানান, বৃহস্পতিবার গণনার দিন তিনি বাড়িতে এবং বাড়ির সামনের পার্টি অফিস কিংবা স্থানীয় চেতলা অগ্রণী ক্লাবের টিভিতে চোখ রাখবেন। ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষ জানান, গণনার দিন দলীয় কর্মীদের নিয়ে তিনি নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়াম যাবেন। সেখানে উত্তর কলকাতা লোকসভা কেন্দ্রের গণনা চলবে।

এ দিন পুরসভার মেয়র পরিষদের বৈঠকেও ঘুরে ফিরে এসেছে ফলাফলের প্রসঙ্গ। মেয়র পারিষদ অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়, বৈশ্বানর চট্টোপাধ্যায়েরা ভোটের দিন তাঁদের অভিজ্ঞতার কথা শোনাতে গিয়ে বলেন, ‘‘এ বার ভোটের দিন দেখা গেল, সকলেই যেন চুপচাপ। চেনা লোকও কারও সঙ্গে কথা না বলে সরাসরি ভোট দিয়ে গিয়েছেন। এমনকি এজেন্টকেও যেন চেনেন না। ভারী অদ্ভুত লেগেছে।’’ অবশ্য গণনা কেন্দ্রগুলিতে পুর পরিষেবায় যাতে ব্যাঘাত না ঘটে, সে দিকে নজর রাখতে সকাল সকাল পুরসভায় আসবেন আমলারা। যদিও চোখ তাঁদেরও থাকবে টিভির দিকেই। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন