• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

খসড়ায় বায়ুদূষণ বৃদ্ধির আশঙ্কা

main
প্রতীকী ছবি।

কলকাতা, দিল্লি-সহ দেশের একাধিক শহরের বায়ুদূষণের অন্যতম কারণই হল নির্মাণ শিল্প। কিন্তু কেন্দ্রীয় পরিবেশ, অরণ্য ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রকের তরফে প্রস্তাবিত ‘এনভায়রনমেন্টাল ইমপ্যাক্ট অ্যাসেসমেন্ট’ বা ‘ইআইএ’-এর (কোনও প্রকল্প করার ফলে পরিবেশের উপরে তার প্রভাব সম্পর্কিত মূল্যায়ন) খসড়ায় শুধুমাত্র বড় ইমারত ও নির্মাণ শিল্পকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে বলে অভিযোগ করছেন পরিবেশকর্মীদের একাংশ। মাঝারি-ছোট নির্মাণ শিল্পগুলিকে এই পরিধির বাইরে রাখার ফলে বায়ুদূষণের মাত্রা অনেকটাই বেড়ে যাবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন তাঁরা। প্রস্তাবিত খসড়া প্রত্যাহারের জন্য তাঁরা মন্ত্রকে চিঠিও দিয়েছেন।

মন্ত্রক সূত্রের খবর, প্রস্তাবিত ইআইএ-এর খসড়া সম্পর্কে সবার মতামত নেওয়ার জন্য ১১ অগস্ট পর্যন্ত সময় রাখা হয়েছে। তার মধ্যে বিশেষজ্ঞ, পরিবেশকর্মী থেকে সাধারণ মানুষ, সবাই নিজস্ব মতামত দিতে পারেন। পরিবেশকর্মীদের একাংশের বক্তব্য, খসড়ায় ‘পোস্ট-ফ্যাক্টো’ পরিবেশগত ছাড়পত্র বৈধকরণ, জনশুনানির প্রক্রিয়া খারিজ-করা সহ একাধিক প্রস্তাব রাখা হয়েছে। যা পরিবেশের পক্ষে বিপজ্জনক। পরিবেশকর্মী প্রদীপ কক্কর বলেন, ‘‘পরিবেশের ক্ষতি করে কী ভাবে শুধুমাত্র শিল্পস্থাপন করা যায়, কেন্দ্রীয় সরকার সেটাই দেখছে। সারা বিশ্বের কাছে বিজ্ঞাপিত করার এই মানসিকতা অত্যন্ত বিপজ্জনক।’’ অন্য এক পরিবেশ বিজ্ঞানীর কথায়, ‘‘ইআইএ রিপোর্টের উপরে ভিত্তি করেই কোনও প্রকল্প অনুমোদন বা প্রত্যাখ্যান করা হয়। সেখানে যদি শুধুমাত্র ব্যবসায়িক সুবিধার কারণে ইআইএ-র নিয়মকানুন শিথিল হয়, তা হলে তো তা পরিবেশের পক্ষে মারাত্মক! আমরা চাইছি এই খসড়া প্রত্যাহার করা হোক!’’ যদিও মন্ত্রকের এক কর্তার কথায়, ‘‘এটা এখনও খসড়া। তাতে কোথায়, কী অসুবিধা রয়েছে, তা আলোচনার ভিত্তিতে ঠিক করার জন্যই সবার মতামত চাওয়া হয়েছে। সব দিক ভেবেচিন্তেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’’

উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল সম্পর্কিত যাবতীয় আপডেট পেতে রেজিস্টার করুন এখানে    

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন