প্রাথমিকে নিয়োগ-সহ একাধিক দাবিতে দীর্ঘদিন ধরেই আন্দোলন চালাচ্ছে ওয়েস্ট বেঙ্গল প্রাইমারি ট্রেন্ড টিচার্স এসোসিয়েশন (ডব্লিউবিপিটিটিএ)। শনিবার সংগঠনের তরফে ডাক দেওয়া হয়েছিল ‘দিদিকে বলো, দিদির বাড়ি চলো’ কর্মসূচির। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি পৌঁছনোর আগেই গ্রেফতার করা হল সংগঠনের ১২ জন সদস্যকে।

সংগঠনের রাজ্য সভাপতি পিন্টু পাড়ুই অভিযোগের সুরে বলেন, ‘‘এ দিন সকাল ১১টা নাগাদ, হাজরা মোড়ে আশুতোষ কলেজের সামনে পুলিশ তাঁদের উপর আক্রমণ চালায়। আমাদের কোনও প্রতিনিধিকে দিদির বাড়ির অফিসে না নিয়ে গিয়ে মারধর করে পাঁচ মহিলা-সহ ১২জনকে পুলিশের গাড়িতে তোলে এবং গ্রেফতার করে লালবাজার নিয়ে যায়।’’

২০০৫-’০৬ সেশন পর্যন্ত বঞ্চিত পিটিটিআই পড়ুয়াদের দ্রুত নিয়োগ, প্রাথমিক শিক্ষকদের ফিটমেন্ট ফ্যাক্টরে বেতন, প্রবীণ ও প্রধান শিক্ষকদের বিশেষ স্কেলে নতুন বেতন কাঠামো চালু করা-সহ একাধিক দাবি রয়েছে ওই সংগঠনের। দাবি পূরণে ভবিষ্যতে নতুন কর্মসূচির ডাক দিয়েছে তারা। ২৩ সেপ্টেম্বর নবান্ন অভিযানের ডাক দিয়েছে ওই সংগঠন। ডব্লিউবিপিটিটিএ-র রাজ্য সভাপতি পিন্টু প্রধান বলেন, ‘‘যতই গ্রেফতার করা হোক, আমরা আমাদের দাবি থেকে সরছি না।’’ আমরণ অনশনের হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: ‘ছুটি’তে থাকা রাজীব কোথায়? খোঁজ নিতে নবান্নে সিবিআই, চিঠি রাজ্য প্রশাসনকে

আরও পড়ুন: ‘দেশে চাকরি আছে, উত্তর ভারতের প্রার্থীদের যোগ্যতা নেই’, বিতর্কিত মন্তব্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর