শহরের বুকে নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে রাজ্য আবগারি দফতর। আবগারি দফতরের অনুমতি না নিয়ে পার্টিতে মদ পরিবেশন করতে দেখলেই তা বাজেয়াপ্ত হচ্ছে। গ্রেফতার করা হচ্ছে পার্টির আয়োজকদেরও।

এ বার রাজারহাটের বেদিক ভিলেজে হানা দিলেন অফিসারেরা। শনিবার মাঝরাতে সেখানকার একটি বাংলোয় লাইসেন্স ছাড়া মদ সরবরাহ করার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে দুই ব্যক্তিকে। যে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট দলটি পার্টির আয়োজন করেছিল, গ্রেফতার হওয়া দুই ব্যক্তি তারই সদস্য। বেদিক ভিলেজের কর্ণধার রাজ মোদির সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘‘এই বাংলোগুলি ব্যক্তিগত মালিকানাধীন। এ বিষয়ে আমার কিছুই বলার নেই।’’

আবগারি দফতর সূত্রে খবর, বেশ কিছু দিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি নামী মদ প্রস্তুতকারক সংস্থার নাম করে প্রথম জানানো হয় তারা পার্টি স্পনসর করছে। 

পরে একটি ইংরেজি দৈনিকে বিজ্ঞাপন দিয়ে পার্টির কথা ঘোষণা করা হয়। সেখানে পার্টি আমন্ত্রণমূলক বলা হলেও, কেউ একা যেতে চাইলে এক হাজার এবং যুগলে গেলে দেড় হাজার টাকা ধার্য হয়েছিল। অনলাইনে তা জমা দিতে হয়েছে।

আবগারি দফতর সূত্রের খবর, বেদিক ভিলেজের নিজস্ব লাইসেন্সপ্রাপ্ত বার আছে। এই ধরনের ব্যক্তিগত বাংলোয় কেউ বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে মদ খেলে আপত্তির কারণ থাকে না। কিন্তু টাকার বিনিময়ে মদ সরবরাহ করলে তা আবগারি আইনের আওতায় পড়ে। পার্টিতে মদ সরবরাহ এবং বিক্রি করতে চাইলে আবগারি দফতর এক থেকে পরপর তিন দিনের অস্থায়ী লাইসেন্স নেওয়া যায়। ১৫ হাজার টাকা ফি দিতে হয়।

কেউ নিজের বাড়ি ছাড়া কোনও কমিউনিটি সেন্টারে অতিথিদের ডেকে মদ খাওয়াতে চাইলেও, নিয়ম মতো এক দিনের জন্য লাইসেন্স নিতে হবে। সে ক্ষেত্রে ন’দিনের আগে আবেদন করলে ১০ হাজার টাকা ফি নেওয়া হবে। পার্টির তিন দিন আগে আবেদন করলে ফি বেড়ে দ্বিগুণ হয়ে যাবে। এই ধরনের পার্টির ক্ষেত্রে আবার দেশি মদের বোতল প্রতি ২০০ টাকা ও বিদেশি মদের ক্ষেত্রে ৩৩২ টাকা আলাদা ফি নেবে আবগারি দফতর। 

শনিবার রাতে বেদিক ভিলেজের ওই বাংলোয় কোনও ধরনেরই লাইসেন্স ছিল না। রাত একটা নাগাদ আবগারি দফতরের দক্ষিণ শাখা এবং বিধাননগর শাখার 

অফিসারেরা একযোগে হানা দেন। গিয়ে দেখা যায়, প্রচুর বিয়ার, ওয়াইন, টেকিলা, স্কচ সরবরাহ করা হচ্ছে। তবে এন্ট্রি ফি-তে মদের দাম ধরা ছিল না। মদ আলাদা ভাবে কিনতে হচ্ছিল। দামের আলাদা তালিকা বানানো হয়েছিল। আবগারি দফতর সূত্রের খবর, বিমানবন্দর থেকে কর বিহীন মদও পার্টি থেকে মিলেছে। আবগারি দফতর সূত্রে জানানো হয়েছে, ঘটনাটির তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।