একই রুটের দু’টি বেসরকারি বাসের রেষারেষির মধ্যে পড়ে জখম হয়েছিলেন এক যুবক। বৃহস্পতিবার সকালের ওই ঘটনায় দুই বাসচালকের বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত ভাবে মৃত্যু ঘটানোর মতো পরিস্থিতি তৈরির অভিযোগে মামলা রুজু করল পুলিশ।

পুলিশ সূত্রের খবর, এর আগে বাসের ধাক্কায় কেউ জখম হলে অবহেলা এবং বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালানোর পাশাপাশি আঘাতের ধারা যুক্ত করে তদন্ত করা হত। কিন্তু এ দিন দু’টি বাসের রেষারেষির চিত্র সামনে আসতেই লালবাজারের তরফে ওই কড়া ধারায় মামলা রুজু করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। ধৃত দুই চালকের নাম হাবিব মণ্ডল এবং সুধাংশু দাস। এ দিন তাঁদের আলিপুর আদালতে তোলা হলে ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন বিচারক।

লালবাজার জানিয়েছে, এ দিনের ঘটনাটি ঘটে সুইনহো স্ট্রিট এবং গড়িয়াহাট রোডের মোড়ে। ৪৫ নম্বর রুটের দু’টি বাসের মধ্যে পড়ে জখম হন তুষার পুরকাইত নামে উস্তির এক বাসিন্দা। তাঁর মাথায় আঘাত লাগে।

তদন্তকারীদের দাবি, দু’টি বাসের একটিরও বৈধ নথি ছিল না। পাশাপাশি, লাইসেন্স ছাড়াই হাবিব চালকের আসনে বসেছিলেন। তার পরেই জামিন-অযোগ্য ধারায় দুই চালককে গ্রেফতার করে গড়িয়াহাট থানা। এক তদন্তকারী জানান, শহরের রাস্তায় বাসের রেষারেষি কার্যত মহামারীর আকার নিয়েছে। তাতে রাশ টানতেই এই ধারা যুক্ত করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠানো হয়েছে দুই বাসের মালিকদের।