পরীক্ষা চলাকালীন কেন্দ্র থেকেই গ্রেফতার হলেন এক ভুয়ো পরীক্ষার্থী। সোমবার, দক্ষিণ বন্দর থানা এলাকার মেরিন হাউস থেকে। ধৃতের নাম শশাঙ্ককুমার সিংহ। পুলিশ জানিয়েছে, তাঁকে জেরা করে উঠে এসেছে দ্বিতীয় নাম। বুধবার পর্ণশ্রী থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে দ্বিতীয় ব্যক্তিকেও। ধৃতের নাম প্রণব বাৎসে। 

পুলিশ সূত্রের খবর, মার্চেন্টাইল মেরিনের লিখিত পরীক্ষা শুরুর কিছু ক্ষণ পরেই উপস্থিত পরীক্ষক দেখেন, এক জন পরীক্ষার্থীর পরিচয়পত্রের ছবির সঙ্গে চেহারার মিল নেই। সন্দেহ হওয়ায় তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন পরীক্ষক। কথায় অসঙ্গতি মেলায় পরীক্ষার্থীর পরিচয়পত্রের সঙ্গে অ্যাডমিট কার্ড এবং পাসপোর্ট খতিয়ে দেখা হয়। তাতেই ধরা পড়েন যুবক আসলে ভুয়ো পরীক্ষার্থী। তাঁকে জেরা করে আন্তঃরাজ্য ভুয়ো পরীক্ষার্থী চক্রের সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। ধৃত দু’জনই ওই চক্রের সদস্য।

জেরায় জানা গিয়েছে, শশাঙ্ক এবং প্রণব দু’জনেরই বাড়ি লখনউতে। দু’জনেই পর্ণশ্রী এলাকায় বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকেন। শশাঙ্ক জানিয়েছেন, তিনি মার্চেন্টে চাকরি করেন। পুলিশের দাবি, সুধীর কুমার নামে এক জনের হয়ে লিখিত পরীক্ষা দিতে এসেছিলেন শশাঙ্ক। সুধীরের অ্যাডমিট কার্ড, পাসপোর্ট-সহ বিভিন্ন পরিচয়পত্রের ছবির জায়গায় নিজের ছবি বসিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। এ দিকে, উত্তর প্রদেশের বাসিন্দা সুধীরের খোঁজ এখনও পায়নি পুলিশ। শশাঙ্ককে জেরা করেই সন্ধান মেলে চক্রের অন্য সদস্য প্রণবের। প্রণবকে বৃহস্পতিবার আদালতে পেশ করা হলে বিচারক তাঁকে পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন।

প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশ জানিয়েছে, ভিন্ রাজ্যে ছড়িয়ে রয়েছে ওই চক্র। টাকার বিনিময়ে তাঁরা অন্যের হয়ে চাকরির পরীক্ষা দিতেন। ওই চক্রের সঙ্গে জড়িত বাকিদের খোঁজ চলছে।