টেক-অফ করার জন্য রানওয়ের প্রান্তে দাঁড়িয়ে বিমান। ভিতরে বসে রয়েছেন যাত্রীরা। এমন সময়ে ট্যাক্সিওয়ে ছেড়ে রানওয়ের কাছে চলে এল আরও একটি বিমান!

শুক্রবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে কলকাতায়। নিরাপত্তার নিরিখে এই ধরনের ঘটনাকে বড়সড় গাফিলতি বলে মনে করা হয়। কার বা কাদের ভুলে এমন ঘটনা ঘটল, তা তদন্ত করে দেখছে ডিরেক্টরেট জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশন (ডিজিসিএ)। দিল্লিতে রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে।

বুধবার রাতেই বেঙ্গালুরু থেকে কলকাতায় নেমে ভুল ট্যাক্সিওয়েতে ঢুকে পড়েছিল স্পাইসজেটের একটি বিমান। তখন সেই ‘রোমিয়ো’ ট্যাক্সিওয়েতে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের জনা আটেক কর্মী ঘাস ছাঁটার কাজ করছিলেন। ঘাড়ের কাছে বিমান চলে আসায় তাঁরা ছুটে পালান। স্পাইসজেটের পাইলট ব্রেক কষে রোমিয়ো ট্যাক্সিওয়েতে বিমান দাঁড় করিয়ে দেওয়ায় অল্পের জন্য বেঁচে যান তাঁরা।

শুক্রবার সকালের ঘটনা আরও গুরুতর বলে মনে করছেন বিমানবন্দরের অফিসারেরা। এ দিনও দু’টি বিমানের মধ্যে একটি ছিল স্পাইসজেটের। অন্যটি এয়ার ইন্ডিয়ার। বুধবার রাতের মতো, এ দিন সকালেও স্পাইসজেটের পাইলট এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোল (এটিসি)-এর নির্দেশ ঠিক মতো বুঝতে পারেননি বলে অভিযোগ উঠেছে। এমনকি তিনি যে ভুল করেছেন, সে কথা তখনই রেডিয়ো বার্তা মারফত পাইলট মেনে নেন বলে বিমানবন্দর সূত্রে জানা গিয়েছে।

বিমানবন্দর সূত্রের খবর, এ দিন সকাল ৬টা ২৪ মিনিটে প্রথমে এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানকে রানওয়েতে ঢোকার অনুমতি দেয় এটিসি। ‘ডেল্টা’ ট্যাক্সিওয়ে দিয়ে প্রধান রানওয়ের রাজারহাটের (উত্তর) দিকে ঢুকে মুখ ঘুরিয়ে দৌড় শুরু করার জন্য প্রস্তুত হয় সংস্থার এয়ারবাস ৩১৯ বিমান। তাতে ছিলেন ১৩৮ জন যাত্রী। শিলচর যাওয়ার কথা ছিল বিমানটির।

ওই সময়েই ‘ব্রাভো’ ট্যাক্সিওয়ের কাছে গিয়ে স্পাইসজেটের তুলনায় ছোট কিউ ৪০০ বিমানের অপেক্ষা করার কথা ছিল। এয়ার ইন্ডিয়া উড়ে গেলে এটিসি-র অনুমতি পাওয়ার পরে সেই বিমানের রানওয়েতে ঢুকে বিরাটির (দক্ষিণ) দিক থেকে ওড়ার কথা ছিল। প্রায় ৬০ জন যাত্রী নিয়ে ওই বিমানেরও গন্তব্য ছিল শিলচর।

বিমানবন্দর সূত্রে জানা গিয়েছে, রানওয়েতে ঢোকার আগে ট্যাক্সিওয়ের যেখানে বিমান অপেক্ষা করে, তাকে ‘হোল্ডিং পয়েন্ট’ বলা হয়। কোনও বিমান সেই হোল্ডিং পয়েন্ট ছেড়ে সামান্য এগিয়ে গেলেও তাকে নিয়ম লঙ্ঘন বলে মনে করা হয়। অভিযোগ, এ দিন স্পাইসজেটের পাইলট হোল্ডিং পয়েন্ট ছেড়ে এগিয়ে গিয়েছিলেন। তখনই এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলটকে রানওয়ে ছেড়ে ‘চার্লি’ ট্যাক্সিওয়ে দিয়ে বেরিয়ে আসতে বলে এটিসি। এয়ার ইন্ডিয়া বেরিয়ে এলে স্পাইসজেট শিলচর উড়ে যায়। তার পরে আবার রানওয়েতে ঢুকে উড়ে যায় এয়ার ইন্ডিয়া।

ঘটনাটি নিয়ে এয়ার ইন্ডিয়া কোনও মন্তব্য করতে চায়নি। নিয়ম লঙ্ঘন করার অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করে স্পাইসজেট জানিয়েছে, এই ধরনের কোনও ঘটনাই ঘটেনি।