বিয়ের পরে কেটেছে তেরো বছর। অভিযোগ, স্বামী বরাবরই তাঁর উপরে মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার চালাতেন। এমনকি, বছর দশেকের মেয়ে বাবাকে বাধা দিতে গেলে তাকেও ছাড়তেন না ওই ব্যক্তি। মেয়ের উপরেও চলত অকথ্য অত্যাচার। বুধবার রাতে গরফা থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ দায়ের করেছেন কালিকাপুরের বাসিন্দা, বছর চৌত্রিশের এক বধূ।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই বধূ তাঁর অভিযোগে বলেছেন, তাঁর স্বামী পেশায় গাড়িচালক। বিয়ের পর থেকেই ছোটখাটো বিষয় নিয়ে দু’জনের মধ্যে হামেশাই গোলমাল বেধে যেত। কিন্তু সংসারে থাকলে এ রকম সমস্যা হয় ভেবেই ওই বধূ সমস্ত অত্যাচার মেনে নিতেন। তাতেও অবশ্য গোলমাল কমেনি।

ওই বধূ পুলিশকে জানিয়েছেন, সম্প্রতি অত্যাচার ও মারধরের মাত্রা বেড়ে গিয়েছিল। তা সীমা ছাড়িয়ে যেতেই বুধবার রাতে তিনি সোজা গরফা থানায় মেয়েকে নিয়ে হাজির হন। ওই বধূর অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে বধূ নির্যাতন এবং মেয়েকে মারধরের জন্য জুভেনাইল জাস্টিস অ্যাক্টের ৭৫ নম্বর ধারায় মামলা রুজু করেছে। পুলিশের এক কর্তা জানিয়েছেন, তদন্ত 

শুরু হয়েছে।